“ডিএনএ” কী? পর্ব-৩—RNA,TRANSCRIPION, CODON


 

পর্ব-৩,  RNA,TRANSCRIPION, CODON

 

পর্ব-২ –     গঠন

 

 পর্ব-১      -গঠন

ইসলামে প্রাণীর ছবি হারাম । তাই ছবিটি মুছে দেয়া হলো।—- ব্লগ কর্তৃপক্ষ ।

পর্বটি চলতে থাকবে।

ডিএনএর  সংগে প্রানী বিবর্তনের সম্পর্ক-২০০৫ সালে বিজ্ঞানীগন শিম্পাঞ্জীর GENOME আবিস্কারে সমর্থ হন। GENOME বলা হয় কোন একটি প্রাণীর সম্পূর্ণ GENETIC CODE এর SET কে। বিজ্ঞানী গন দেখতে পান মানবের GENOME এর সংগে শিম্পাঞ্জীর GENOME প্রায় ৯৯% মিল। সম্প্রতি বিজ্ঞানীগন একই রকম মিলের আর একটি প্রানী মধ্য আফ্রিকায় আবিস্কার করেছেন যার নাম বনোবো। বিজ্ঞানীগন মনে করেন, মানব,শিম্পাঞ্জী ও বনোবোর একই পূর্ব পুরুষের বসবাস ছিল ৪০-৫০ লক্ষ বৎসর পূর্বে।

তবে বিজ্ঞানী গন এখনো নিশ্চিত হতে পারেন নাই যে সেই পূর্বপুরুষেরা দেখতে কেমন ছিল বা তাদের আচার আচরন ও কেমন ছিল? (১)

ডিএনএ সম্পর্কে পরবর্তিতে আরো কিছু বুঝতে গেলে আরএনএ  সম্পর্কে এখনি কিছুটা জেনে নেওয়া দরকার। কারন ডিএনএ এর অনেক কাজ কামের সংগে আরএনএ  সরাসরি জড়িত। এ কারনে আরএনএ  কে ডিএনএর  COUSIN ও আখ্যা দেওয়া হয়। আসুন তাহলে দেখা যাক আরএনএ কি?

আরএনএ

 

ফটো- Phoebus Levene

আবিস্কার-

Phoebus Levene  নামে একজন রাসিয়ান বায়োকেমিষ্ট ১৯০৯ সালে একটি YEAST হতে পাচ কার্বন বিশিষ্ট একটি শর্করা অনু বের করেছিলেন। এর তখন নাম দিয়েছিলেন রিবোছ (RIBOSE)।

পরবর্তিতে ১৯২৯ সালে তিনি একটি প্রানীর থাইমাছ গ্লান্ডের নিউক্লীয়াছ হতে আর একটি পাচ কার্বন বিশিষ্ট শর্করা অনু বের করেছিলেন। কিন্তু এই অনুটি পূর্ববর্তী অনু হতে সামান্য কিছুটা পৃথক ছিল।এই অনুতে রিবোছ অনু হতে একটা অক্সিজেন অনু  কম ছিল।

তিনি তখন এই দ্বিতীয় অনুটির নাম দিলেন ডিঅক্সিরিবোছ এবং প্রথমটির নাম দিলেন রিবোছ যা আর এনএ এর উপাদান এবং ডিঅক্সিরিবোছ  ডি এন এ এর উপাদান।

এই পরীক্ষা হতেই ডিএনএআরএনএ এর পার্থক্য ভিন্ন উপাদানের মধ্য দিয়ে ধরা পড়ে গেল এবং রিবোছ  সম্বলিত নিউক্লীক এসিডটিকেআরএনএ” নাম দেওয়া হইল।(২)

আর এন এ এর উপাদান-

আর এন এ ডিএনএ এর উপাদান ও আকৃতি প্রায় একই, অতএব এদের পার্থক্য ও সামঞ্জস্য  টা দেখিয়ে দিলেই বুঝার জন্য যথেষ্ট হইবে।

১) রিবোছ অনুতে ডিঅক্সিরোছ হতে C2 তে OH অনু আকারে ১টি অক্সিজেন অনু বেশী আছে, যেখানে ডিঅক্সিরোছ এ শুধু মাত্র H অনু আছে। লক্ষ করুন চিত্র ১ ও ২।

২। ডিএনএ ডবল হেলিক্স, অর্থাৎ ২টা STRAND বা চেইন বিশিষ্ট হয়। কিন্তু আর এন এ এক চেইন বিশিষ্ট হয়।(চিত্র-৩,চিত্র-৭)

৩) আরএনএ তে থাইমিন বেছ নাই, তার স্থলে আছে ইউরাছিল বেছ (U)।(চিত্র-৩ ও ৭)।অতএব আর এন এ এর বেছ হইল, ACGU।আর সেখানে ডিঅক্সিরোছ এর বেছ হইলACGT।

আর এনএ এর চেইন ডিএনএ এর চেইন অপেক্ষা স্বল্প দৈর্ঘের হয়।

 

চিত্র-১ রিবোছ

 

চিত্র-২ ডি অক্সিরিবোছ

চিত্র-৩।  ডিএন এ ২ চেইন বিশিষ্ট ও আর এন এ ১ চেইন বিশিষ্ট। এখানে উভয়ের বেছ এর পার্থক্য ও দেখানো হয়েছে।

আরএনএ চেইন ও ডিএন এ চেন এর মতই নিউক্লীওটাইড সংযোজন দ্বারা গঠিত এবং এর ও 5’ – 3’ PRIME END ও রয়েছে। এদের ও DNA NUCLEOTIDE এর মত 5’ PRIME প্রান্তে ফসফেট (PO4) ও 3’ PRIME প্রান্তে হাইড্রক্সিল (OH) অনু থাকে।চিত্র-৪

 

চিত্র-৪) এখানে একটি আরএনএ  নিউক্লীওটাইড (ডানে) ও আর একটি ডি এন এ নিউক্লীওটাইড (বামে)কি ভাবে গঠিত হয়েছে এবং এদের পার্থক্য ও গঠন প্রকৃয়া দেখানো হয়েছে।

আর এনএ কত প্রকার ও তাদের প্রধান কাজ।

অনেক প্রকারের আরএনএ আছে এর মধ্যে প্রধান ৩ প্রকারের।এই ৩ প্রকারের কথাই প্রাথমিক ভাবে এখানে বলা হবে।

১। মেছেনজার আরএনএ (MESSENGER RNA) সংক্ষিপ্ত নাম এমআরএন

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

Comments are closed.