ঢাকার বিকেন্দ্রীকরণের বিকল্প নেই


দেশের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, প্রশাসন, বিচার ব্যবস্থা, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সকল ব্যবস্থা গড়ে উঠেছে ঢাকাকে কেন্দ্র করে। এ অবস্থায় ঢাকা পরিণত হয়েছে দেশবাসীর প্রধান গন্তব্যস্থলে।

ঢাকা: দেশের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, প্রশাসন, বিচার ব্যবস্থা, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সকল ব্যবস্থা গড়ে উঠেছে ঢাকাকে কেন্দ্র করে। এ অবস্থায় ঢাকা পরিণত হয়েছে দেশবাসীর প্রধান গন্তব্যস্থলে। আর এ কারণেই অতিরিক্ত চাপ সইতে না পেরে ঢাকা হারাচ্ছে তার স্বাভাবিকতা। এ অবস্থা থেকে এ মহানগরীকে বাঁচানোর জন্য বিশেষজ্ঞরা গুরুত্ব দিয়েছেন বিকেন্দ্রীকরণ-এর ওপর।

এক গবেষণায় দেখা গেছে, সারাদেশে সরকারি-বেসরকারি ৮২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ৬০টিই ঢাকায়। ৩৮টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজের মধ্যে ৩২টিই এ ঢাকা মহানগরীতে। উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে দেশের চরম ভারসাম্যহীন অবস্থার এটিই বাস্তবচিত্র।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, সারা দেশে সরকারি-বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ৮২টি। এর মধ্যে ৬০টি ঢাকা শহরে। ৩৮টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজের ৩২টি ঢাকাতে। শুধু সংখ্যার বিচারেই নয়, মানের দিক থেকেও দেশের সেরা স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় এ শহরটিতে কেন্দ্রীভূত।

বাংলাদেশ শিক্ষাতথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরোর (মে, ২০০৯) তথ্য অনুযায়ী, ৬টি বিভাগে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় ১ কোটি ৭ লাখ ৭৩ হাজারের কিছু বেশি শিক্ষার্থী পড়াশোনা করে। এর মধ্যে ৩০ লাখ ৩০ হাজার (২৮ শতাংশ) শিক্ষার্থী শুধু ঢাকা বিভাগেই। এর বড় অংশটি ঢাকা শহরে।

অপরদিকে, দেশে সবচেয়ে বেশি স্কুল চট্টগ্রাম বিভাগে (৭০৬টি), আর ঢাকা বিভাগে ৫৮৫টি। কিন্তু, শিক্ষার্থীর সংখ্যা ঢাকায় বেশি। অন্যদিকে, কলেজের সংখ্যা ঢাকা বিভাগে ২২২টি, যা যে কোনো বিভাগের চেয়ে অনেক বেশি।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পপুলেশন সায়েন্সেস বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক নূর-উন-নবী বাংলানিউজকে বলেন, ‘ছেলেমেয়ের ভালো শিক্ষা বা উচ্চশিক্ষার জন্য সারা দেশের মানুষের প্রথম পছন্দের শহর ঢাকা।’

নগর পরিকল্পনাবিদ ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. নজরুল ইসলাম জানান, ‘বিকেন্দ্রীকরণ ব্যবস্থা ছাড়া ঢাকাকে রক্ষা করা সম্ভব নয়।’ এ জন্য তিনি রাজধানী ঢাকার সমমর্যাদা ও সকল সুযোগ-সুবিধার সমন্বয়ে বিভাগীয় শহরগুলোকে আধুনিক ও সমৃদ্ধ করার আহ্বান জানান।

পরিবেশবিদ অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ বলেন, ‘ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার চাপে বিপর্যস্ত ঢাকা মহানগরী। এ থেকে ঢাকাকে বাঁচানোর জন্য প্রয়োজন সরকারের সদিচ্ছা।’

তিনি আরো বলেন, ‘ঢাকাকে রক্ষা করতে রাজধানীর ন্যায় সকল সুযোগ সুবিধার সমন্বয় ঘটিয়ে চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, কুমিল্লা, রংপুর, দিনাজপুর, সিলেট, ফরিদপুর, যশোরসহ প্রতিটি জেলা ও বিভাগীয় শহরকে রাজধানীর আদলে গড়ে তুলতে পারলে নগর কেন্দ্রিকতা বহুলাংশে কমে আসবে।

বিকেন্দ্রীকরণ প্রসঙ্গে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের চেয়ারম্যান আবু নাসের খান বলেন, ‘ঢাকাকে চারদিকে ছড়িয়ে দিতে না পারলে অমানিশার ঘোর অন্ধকারে ঢাকা পড়বে মহানগরবাসীর ভাগ্য।’ তিনি একমাত্র সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রীয় ও সোনালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় ঢাকায় রেখে বাকি সেক্টর, কর্পোরেশন, সরকারি-আধা সরকারি ও স্বায়ত্ত শাসিত প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক-বীমা, প্রাইভেট ইন্সুরেন্স কোম্পানি, ব্যাংকের কর্পোরেট অফিস, গার্মেন্টস ফ্যাক্টরি, প্রাইভেট ব্যাংকগুলো ঢাকার বাইরে বিভাগীয় ও জেলা শহরে স্থানান্তর করা জরুরি হয়ে পড়েছে বলে জানান।

বুয়েটের নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. রুখসানা হাফিজ জানান, ‘সরকারি-বেসরকারি শিল্প-কলকারখানা, জাতীয় গার্মেন্টসসমূহ, হাইকোর্ট, জজকোর্ট, ঢাকা সেন্ট্রাল জেল, ঢাকা ডিসি ও এসপি অফিস, ডিসি কোর্ট, জেলা পরিষদ ভবন, সচিবালয়সহ প্রশাসন বিকেন্দ্রীকরণ করতে না পারলে আগামী ২০ বছর পর ঢাকায় মানুষ আর বসবাস করতে পারবে না।’

এবিষয়ে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট আবদুল মান্নান বলেন, ‘ঢাকাকে মানুষের বসবাস উপযোগী নগরী হিসেবে গড়ে তোলা হবে। রাজধানী ঢাকাকে বিকেন্দ্রীকরণের প্রথম ধাপ হিসেবে ঢাকার কেরানীগঞ্জ, সাভার, নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুরসহ ঢাকার বাইরে রাজধানীর ন্যায় সব সুবিধা রেখে ৪টি স্যাটেলাইট শহর গড়ে তোলা হবে। সেখানে লক্ষাধিক ফ্যাট নির্মাণ করা হবে। এ উন্নয়ন প্রক্রিয়ার সাথে বেসরকারি ডেভেলপার কোম্পানিগুলোকেও সম্পৃক্ত করা হবে। তাদের সমন্বয়ে পাবলিক-প্রাইভেট-পার্টনারশিপ ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলা হবে।’

এদিকে, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ও দেশের প্রখ্যাত ভূতত্ত্ববিদ অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরীর মতে, ‘রাজধানীর ক্রমবর্ধমান যানজট ও জনজট কমাতে রাজধানী ঢাকার আদলে সকল সুযোগ-সুবিধা বিদ্যমান রেখে ঢাকার বাইরে কমপক্ষে ১০টি আধুনিক ও পরিকল্পিত নগরী গড়ে তুলতে হবে।’

একই সঙ্গে তিনি প্রতিটি শহরে নগর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ গঠন করারও পরামর্শ দেন। নতুন শহর সৃষ্টির ক্ষেত্রে তিনি সরকারের পাশাপাশি শহর উন্নয়ন প্রক্রিয়ার সাথে ডেভেলপারদের সম্পৃক্ত করার আহ্বানও জানান। তিনি এক্ষেত্রে পাবলিক-প্রাইভেট-পার্টনারশিপ (পিপিপি)-র ওপর গুরুত্ব দেন।

Views All Time
1
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে