তারাওতো রাজাকার-যুদ্ধাপরাধী!! তাহলে উপজাতিরা কি করে ‘কোটা’ সুবিধা পাচ্ছে?


সরকারী আমলারা বারবার ঘোষণা দিয়ে বেড়াচ্ছে- ‘যারা যুদ্ধাপরাধী রাজাকার ও স্বাধীনতাবিরোধী তাদের সন্তান ও বংশধরদেরকে কোন সরকারী সুযোগ-সুবিধা দেয়া হবে না।’
এ সকল আমলাদের নিকট প্রশ্ন হলো- তাহলে ১৯৭১ সালে যে উপজাতিরা তাদের নেতা ত্রিদিবের নেতৃত্বে বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করলো তাদের বিচার হচ্ছে না কেন? সরকার কি করে ‘উপজাতি কোটা’ সুবিধা রেখে এসব রাজাকারদেরকে সরকারী সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা করে রেখেছে?

সরকার সত্যিই যদি স্বাধীনতার চেতনায় বিশ্বাস করেই থাকে- তাহলে কেন স্বাধীনতাবিরোধী উপজাতিদের ‘উপজাতি কোটা’ বাতিল করা হচ্ছে না?
এই উপজাতিগুলোতো এখনো তাদের নেতা হিসেবে ত্রিদিবকে মেনে থাকে। ত্রিদিবের ছেলে দেবাশীষের নেতৃত্বে তারা এখনো পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকাকে বাংলাদেশ থেকে বিচ্ছিন্ন করার আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে।

উপজাতি কোটা তুলে দিয়ে এবং সকল সরকারী চাকরী থেকে উপজাতিদের বাদ দিয়ে আওয়ামী নেতাদেরকে প্রমাণ করতে হবে আসলেই তারা প্রকৃত স্বাধীনতার চেতনাধারী। নচেত প্রমাণিত হবে তারাও ‘চেতনা ব্যবসায়ী’।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে