দাঁত থাকতে দাঁতের মর্ম বুঝে নিন


আয়নায় নিজেকে দেখুন, খালিক্ব মালিক বর মহান আল্লাহ পাক তিনি আপনাকে কত সুন্দর নিঁখুতভাবে সৃষ্টি করেছেন! আজ ধরুন আপনার একটি চোখ নষ্ট হয়ে গেলো অথবা একটি হাত ভেঙ্গে গেলো বা একটি নখে পঁচন ধরলো। কেমন বোধ হবে? খুবই কষ্টের। স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হবে। পাশাপাশি সৌন্দর্য হানিরও প্রশ্ন দেখা দিবে। তাহলে দেখুন, নিজেকে আপনি কত মুহব্বত করেন। যে শরীর একদিন মাটির সঙ্গে মিশে যাবে। যার কোনো অস্তিত্বই যমীনের বুকে থাকবে না। তার কত যতœ নেয়া হয়। অথচ শরীরের মধ্যে যে অন্তর লুকিয়ে আছে তার খবর নিয়েছেন, সে কি কি চায়? সে কিন্তু মহান আল্লাহ পাক উনাকে চায়।
খালিক্ব মালিক বর মহান আল্লাহ পাক তিনি অত্যন্ত দয়া করে, মায়া করে, মুহব্বতের কারণেই এই কায়িনাত সৃষ্টি করেছেন। তাহলে ফিকিরের বিষয়! তিনি কষ্ট পান উনার নাফরমানীমূলক কাজ যখন বান্দা-বান্দী করে থাকে। আফসোস! তাদের জন্য। সকল মুসলমানের উচিত এই মুহূর্ত থেকে খালিছ তাওবা ইস্তিগফার করে সমস্ত হারাম কাজ থেকে ফিরে আসা। মহান আল্লাহ পাক উনাকে মুহব্বত করা, উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে মুহব্বত করা, উনাদের দেয়া জীবনবিধান তথা ‘পবিত্র দ্বীন ইসলাম’ উনাকে মুহব্বত করা এবং সমস্ত আদেশ-নিষেধ মুবারক স-সম্মানে মেনে চলা। মুহব্বতের মাধ্যমে দিয়ে যা করা সম্ভব অন্য কোনো কিছুর মাধ্যম দিয়ে তা কখনোই সম্ভব নয়। চোখ দুটো বন্ধ করুন। দেখুন অন্ধকার। এবার খুলুন আলো- তাই না! মৃত্যুর পর কিন্তু ইচ্ছা করলেও চোখ আর খুলতে পারবেন না। চোখে আলো থাকতেই অন্তরের আলো জ্বেলে নিন। পথ পরিষ্কার করে নিন। চলা-ফেরায়, অবস্থানে যেন কোনো কষ্ট না হয়। প্রত্যেক নফসকেই মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে। মহান আল্লাহ পাক তিনি যেন তার পূর্বেই আমাদের প্রত্যেককে মৃত্যুর স্বাদ উপলব্ধি করার তাওফীক দান করেন। আমীন!
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে