দায়িমী কোনো ফরয তরক করে পবিত্র হজ্জ পালন করা জায়িয নেই


পর্দা করা এবং ছবি তোলা বর্জন করা দায়িমীভাবে অর্থাৎ সার্বক্ষণিকভাবে ফরয। অপরদিকে শর্ত সাপেক্ষে জীবনে একবার পবিত্র হজ্জ করা ফরয। স্মরণীয় যে, খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র হজ্জে গমনকারীদের ক্ষেত্রে শর্তারোপ উল্লেখ করে ইরশাদ মুবারক করেন, “যাদের উপর পবিত্র হজ্জ ফরয হবে বা যারা পবিত্র হজ্জ করবে তারা পবিত্র হজ্জ উনার সময় কোনো প্রকার অশ্লীল-অশালীন, ফাসিকী বা নাফরমানীমূলক কোনো কাজ করবে না এবং কোনো প্রকার ঝগড়া-ফাসাদ করবে না।”
এ পবিত্র আয়াত শরীফ দ্বারা মূলত এটাই বুঝানো হয়েছে যে, যারা পবিত্র হজ্জ করবে, তারা পবিত্র হজ্জ উনার জন্য বেপর্দা হতে পারবে না এবং হারাম ছবি তোলাসহ অন্যান্য সর্বপ্রকার হারাম-নাজায়িয কাজ করা থেকে বিরত থাকবে। কেননা সর্বপ্রকার হারাম-নাজায়িয কাজসমূহ দায়িমীভাবে বর্জন করা ফরয। কাজেই শর্ত সাপেক্ষে জীবনে একবার ফরয আমল পালন করা অপেক্ষা দায়িমী ফরয আমল পালন করার গুরুত্ব অধিক। মনগড়াভাবে মাজুরতার দোহাই দিয়ে দায়িমী কোনো ফরয তরক করে পবিত্র হজ্জ পালন করা জায়িয নেই। কারণ মুসলমান জাতিগতভাবে কখনও কোনো অবস্থাতেই মাজুর নয়। অর্থাৎ সম্মানিত শরীয়তসম্মত কারণে কখনও কোনো মুসলমান ব্যক্তিগতভাবে হয়তোবা কোনো ব্যাপারে মাজুর হতে পারে। সেই ক্ষেত্রে যে মুসলমান মাজুর হবে সে তখন যেই হারাম বিষয়টির জন্য মাজুর হবে তা সে মাজুরতার কারণ মুবাহ হিসেবে গ্রহণ করতে পারে, আবার গ্রহণ না করে ছবরও করতে পারে।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+