নতুন আর এক ঘটনা


  সবে শুরু হয়েছে। এতদিন মুসলমানরা হিন্দুদের আদর-যত্ন করে ঘাড়ে তুলেছে, এবার তার পুরষ্কার হিন্দুরা মুসলমানদের কড়ায় গণ্ডায় মিটিয়ে দিতে শুরু করেছে। ফেনীর শহর সংলগ্ন কালী মন্দির মার্কেটে। হরে কৃষ্ণ স্টোরের মালিক ফেনী জাগো হিন্দুর সদস্য আওয়ামী নেতা অর্জুন দাস একটি মুসলিম যুবককের নগ্ন করে পেটালো, ইলেকট্রিক শট দিলো। হতে পারে ঐ যুবকটি চোর। কিন্তু তাই বলে আইন নিজের হাতে তুলে তাকে প্রহার করার কোন অধিকার ঐ অর্জুন দাসের নেই।
 
মুসলমানদের মেরে পিটিয়ে নগ্ন করে ইলেকট্রিক শট দিচ্ছে , ইচ্ছা হলো আর মাথা ফাটিয়ে দিচ্ছে, রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম কেড়ে নেওয়ার জন্য রিট করছে। এভাবেই চলতে থাকবে। তবে মুসলমানরা যেন প্রতিবাদ না করতে পারে, সে জন্য সংখ্যালঘু সংরক্ষণ নামক এমন আইন পাশ করবে যেন, মুসলমানরা হিন্দুদের দিকে ভুলে চোখ তুলে তাকাতেও ভয় পায়।
 
মুসলমানরা যদি এখনই হিন্দুদের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান না দেয়, তবে পরিস্থিতি নিশ্চিত আরো খারাপ হবে, মুসলমানদের মান-ইজ্জত সব হিন্দুদের ইচ্ছার উপর নির্ভর করবে, ভারতের মত বাংলাদেশের মুসলমানদের কেটে কেটে টুকরা করা হবে। তখন কিন্তু কিছুই করার থাকবে না।Untitled
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে