নববর্ষ উপলক্ষে যদি কেউ একটা ডিমও দান করে, তবে তার ৫০ বৎসরের আমল থাকলে সেটাও বরবাদ হয়ে যাবে


“নববর্ষ উপলক্ষে যদি কেউ একটা ডিমও দান করে, তবে তার ৫০ বৎসরের আমল থাকলে সেটাও বরবাদ হয়ে যাবে।” -ইমাম হাফস কবীর রহমতুল্লাহি।
বৈশাখী পূজা ও অ-মঙ্গল যাত্রার প্রতিটি অংশই বিধর্মী-বিজাতীয়দের
অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন- নববর্ষতো বাঙালির উৎসব; এটা হিন্দুদের বা বৌদ্ধৈদের উৎসব হলো কিভাবে?
বইয়ের তাত্ত্বিক রেফারেন্স না দিয়ে বাস্তবতা থেকে দু’একটা উদাহরণ দিচ্ছি-
আমরা প্রতি বছর দেখতে পাই, যে সময়টিতে নওরোজ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়, একই সময় হিন্দুদের বিভিন্ন পূজা-পার্বন, বৌদ্ধদের বিভিন্ন উৎসব, উপজাতিদেরও বৈসাবী পূজা উৎসব করতে দেখা যায়। তবে এ উৎসবটি সার্বজনীন করার উদ্দেশ্যে অর্থাৎ মুসলমানদের মধ্যেও প্রচলন করার জন্য তারা ‘জলকেলি খেলা/উৎসব’ নামেও প্রচারণা করে। যেমন হিন্দুদের হোলি পূজাকে ‘রং খেলা/উৎসব’ নামে প্রচারণা চালায়।
নওরোজের এই সময়টিতে দেখা যায় থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম, মিয়ানমারেও বর্ষবরণ হয়। হিন্দুরা এটাকে বলে সংক্রান্তি আর বৌদ্ধরা বলে সংক্রান উৎসব।
সম্প্রদায়গতভাবে যে যে নামই বলুক না কেন, সমষ্টিগতভাবে এর নাম হচ্ছে নওরোজ (ফার্সি শব্দ) বা নববর্ষ (বাংলা শব্দ)।
কুসংস্কারাচ্ছন্ন অগ্নি উপাসক, হিন্দু, বৌদ্ধ ও উপজাতি সম্প্রদায়ের লোকেরা বিশ্বাস করে, বছরের প্রথম দিনটিতে এভাবে বরণ করে নিলে সারা বছরের জরা-দুঃখ-কষ্ট সব মুছে যাবে।
যেমন বৌদ্ধরা বিশ্বাস করে- বৈসাবী উৎসবে পানি দ্বারা তাদের জরা-দুঃখ মুছে শুদ্ধ হওয়া যাবে।
আবার অগ্নি উপাসকদের বিশ্বাস ‘আগুন তাদের জরা-দুঃখ মুছে শুদ্ধ দেবে। এই বিশ্বাস কিন্তু হিন্দুদের মধ্যে সংক্রামিত।
সর্বশেষ দৃষ্টান্ত দিবো পহেলা বৈশাখের গান “এসো হে বৈশাখ এসো এসো” থেকে। এর মধ্যে একটা লাইন আছে- “মুছে যাক গ্লানি ঘুচে যাক জরা, অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা”। গানটিতে স্পষ্ট বলা হচ্ছে- জরা জীর্ণতা ঘুচে যাক, আগুন দিয়ে শুদ্ধ হয়ে যাক, বৎসরের আবর্জনা (সারা বৎসরের পাপ পঙ্কিলতা)।
মূলত, নববর্ষ অগ্নি উপাসকদের অনুষ্ঠান হওয়ার কারণেই পূর্ববর্তী কোনো ওলী আল্লাহ, কিংবা মুসলিম শাসনামলে কখনোই এ অনুষ্ঠান পালনে অনুমতি বা স্বীকৃতি দেয়া হয়নি, বরং মজুসিদের পূজা উৎসব হওয়ার কারণে এই উৎসবে মুসলমানদের সম্পৃক্ত হওয়া কঠিনভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

Views All Time
2
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে