নাস্তিক চার ব্লগারকে বাঁচাতে আমেরিকা পাঠিয়ে দিচ্ছে সরকার


ইসলাম ও নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি অবমাননাকর লেখার অভিযোগে গ্রেফতার নাস্তিক চার ব্লগারকে সরকার শিগগিরই বিদেশে পাঠিয়ে দিচ্ছে। তাদের আমেরিকায় পাঠানো হচ্ছে বলে বিশ্বস্ত সূত্রে খবর পাওয়া গেছে। এরই মধ্যে তিন ব্লগার জামিন পেয়েছে। আরেক নাস্তিক ব্লগার আসিফ মহিউদ্দিনের জামিন হলেই চারজনকে একসঙ্গে অথবা আলাদাভাবে আমেরিকায় পাঠানো হবে বলে ওই সূত্র জানিয়েছে।

একটি বিশেষ মহলের পক্ষ থেকে এরই মধ্যে বিদেশ ভ্রমণের যাবতীয় আয়োজন সম্পন্ন করা হচ্ছে।
সূত্র জানায়, গ্রেফতার হলেও কোনো রোগ ছাড়াই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রিজন সেলে ডা. সজল ব্যানার্জীর তত্ত্বাবধানে ছিল চার ব্লগার। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ডা. প্রাণগোপালের নির্দেশে তারা সেখানে জামাই আদর পেয়েছে। তেমন কোনো রোগ না থাকলেও হার্টের সমস্যা, ফুসফুসে সমস্যা, প্রেসারসহ নানা রোগের কথা লিখে তাদের হাসপাতালের প্রিজন সেলে রাখার ব্যবস্থা করেন ডা. সজল ব্যানার্জী। এখনও এক ব্লগার হাসপাতালে রয়েছে। তারা সেখানে নিয়মিত বাইরে থেকে উন্নতমানের খাবার পাচ্ছে। তাস খেলে ও আড্ডা দিয়ে সময় পার করছে তারা। বিএসএমএমইউ প্রিজন সেলে আটক ব্লগারদের কী রোগ, সে সম্পর্কে জানার জন্য ডা. সজল ব্যানার্জী ও ভিসি ডা. প্রাণগোপালের সাক্ষাত্ চেয়ে পাওয়া যায়নি।
গ্রেফতারের ১৭ দিন পর ব্লগে আপত্তিকর লেখালেখির অভিযোগে গ্রেফতার চার ব্লগার আসিফ মহিউদ্দিন, মশিউর রহমান বিপ্লব, রাসেল পারভেজ ও সুব্রত অধিকারী শুভর বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে দুইটি পৃথক মামলা দেয়া হেয়ছিল। এর আগে ধর্মীয় উসকানিমূলক ব্লগ লেখার অভিযোগে গত ১ এপ্রিল মশিউর রহমান বিপ্লব, রাসেল পারভেজ ও সুব্রত অধিকারী শুভকে এবং ৩ এপ্রিল ব্লগার আসিফ মহিউদ্দিনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। প্রথমে ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ধারায় তাদের গ্রেফতার দেখিয়ে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে নেয়া হয়। রিমান্ড শেষে গত ১৭ এপ্রিল তথ্যপ্রযুক্তি আইনে দুটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখানোর পর আদালতে গত ১২ মে জামিনের শুনানি হয়। প্রথমে ঢাকার সিনিয়র বিশেষ জজ মো. জহুরুল হক শুনানি শেষে ব্লগার সুব্রত অধিকারী শুভ ও রাসেল পরভেজের জামিন মঞ্জুর করে। পরে ব্লগার মশিউর রহমান বিপ্লবেরও জামিন হয়। এখন আসিফ মহিউদ্দিনের জামিন আবেদন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সে-ও শিগিগিরই জামিন পেয়ে যাবে বলে জানা গেছে।
মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) আদালতে পাঠানো প্রতিবেদনে উল্লেখ করে, মশিউর রহমান বিপ্লব ফেসবুকে আল্লামা ‘শয়তান’, সামহোয়্যারইন ব্লগে ‘শয়তান’, নাগরিক ব্লগে শয়তান এবং আমার ব্লগে ‘নেমেসিস’ ছদ্মনামে লিখত। রাসেল পারভেজ আমার ব্লগে ‘রাসেল পারভেজ’, সামহোয়্যারইন ব্লগে ‘রাসেল’ ও ‘অপবাক’ ছদ্মনামে লিখত। সুব্রত শুভ সামহোয়্যারইন ব্লগে ‘সাদা মুখোশ’, আমার ব্লগে ‘সুব্রত শুভ’, নাগরিক ব্লগে ‘আজাদ’ ও ইস্টেশন ব্লগে ‘লাল কসাই’ ছদ্মনামে লিখত। আসিফ মহিউদ্দিনও নিজ নামে এবং নানা ছদ্মনামে আপত্তিকর মন্তব্য ও অশালীন তথ্য লিখেছে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, আসামিরা ইন্টারনেট ব্যবহারের মাধ্যমে ইসলাম ও নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্পর্কে কটূক্তি, ব্যঙ্গচিত্র ও অশালীন বক্তব্য প্রচার করে জনগণের ধর্মীয় অনুভূতিতে প্রচণ্ড আঘাত করে আসছিল।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক চিকিত্সক ও মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, শিগগিরই চার ব্লগারকে আমেরিকা পাঠানোর আয়োজন চলছে। সেক্ষেত্রে তাদের জীবন ঝুঁকিপূর্ণ শব্দ ব্যবহার করে ভিসা পাওয়া ও আনুষঙ্গিক কাজ সম্পন্ন করা হচ্ছে বলে সূত্রগুলো জানিয়েছে। (আমার দেশ)
লিঙ্ক

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+