নিদৃষ্ট স্থানে পশু কোরবানী কতটা নিরাপদ?


একই স্থানে শত শত ব্যাক্তি যখন উপস্থিত থাকে তথন সে স্থানের আইন শিংঙ্খলা পরিস্থিতি আবনতি হবার আশংকা খুব বেশি থাবে ৷ আবার তার যদি উপস্থিত প্রতিটি ব্যাক্তির নিকট কোন না কোন ধাঁরালো অস্ত্র থাকে ৷ তখন যে কোন সময় সে স্থানটি রনক্ষেত্রে পরিনত হওয়ার সম্ভবনা ও উড়িয়ে দেওয়া যাই না ৷ কারন সে স্থানে উপস্থিত সকলের মতৈক্য না ও থাকতে পারি ৷ তাদের মধ্যে পূর্ব শত্রুতা থাকতে পারে ৷ তাদের মধ্যে রাজনৈতিক বিরোধ থাকতে পারে ৷ এলাকায় প্রধান্য বিস্তারের প্রতিযোগীতা থাকতে পারে ৷ কিংবা পরিকল্পিত ভাবে কেউ সেখানে উৎতেজনা সৃষ্টি করতে পারে ৷ আবার দেশের বর্তমান পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি মৌলবাদীদের আক্রমণের বা হামলার আশঙ্কা ও উড়িয়ে দেওয়া যাই না ৷
আর এই ধরনের পরিস্থিতিতে এই সব স্থানে কোন অঘটন ঘটলে আইন শিংঙ্খলা বাহিনীকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে যথেষ্ট বেগ পেতে হয় ৷ আবার আর্ন্তজাতিক পেক্ষাপটেও সরকারকে নানা প্রশ্নের সমুখে পরতে হয় ৷ ও বৈদেশিক বানিজ্যেও বিশাল প্রভাব ফেলে ৷ বর্তমানে আমরা মৌলবাদের করা গুলশান হামলা, শোয়ালাখিয়া হামলার সময় আমরা এমনটাই দেখেছি ৷
এমন হলে যখন একই স্থানে শত শত লোক যখন পশু জবাই করার জন্য প্রয়োজনীয় ধারালো অস্ত্র সামগ্রী নিয়ে উপস্থিত থাকে ৷ তখন সে স্থানে কোন প্রকার অঘটনের অশংকা ও উড়িয়ে দেওয়া যাই না ৷ কারন মৌলবাদী সন্ত্রাসীরা সব সময় সুযোগের অপেক্ষাই করে ৷
তাই এই সকল নিরাপত্তাগত কারনেই বলা যাই যে নিদৃষ্ট স্থানে পশু কোরবানী নিয়ে আমাদের পুনরাই ভাবতে হবে ৷

Views All Time
1
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

  1. আইন শিংঙ্খলা পরিস্থিতি আবনতি হবার আশংকা খুব বেশি

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে