নূর কি নূরের তৈরি? ওহাবী সালাফীদের এই পোষ্টের খন্ডনমুলক জবাব:-(৪) ওহাবী সালাফীদের লিংক:-http://markajomar.com/?p=194


www.facebook.com/chahiishqenoorani.nojor/posts/1735181933421233এই লিংকের মধ্যে মহান আল্লাহপাক উনার হাবীব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু উনাকে মাটির সৃষ্টি বলে দাবীকৃতদের সমস্ত দলিল খন্ডন করে প্রমাণ করা হয়েছে হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি নুরে মুজাসসাম বা আপাদমস্তক নুর মুবারক দ্বারা সৃষ্টি)

এছাড়াও মহান আল্লাহপাক উনার সবচেয়ে বড় কুদরত হলো উনার হাবীব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি স্বয়ং নিজেই৤ সুবহানাল্লাহ৤ তাই উনার সবকিছুই কুদরতময়৤ এই জন্য মহান আল্লাহপাক তিনি সেই সম্মানিত নুর মুবারক থেকে কুদরতীভাবে সমস্ত সৃষ্টির সূচনা মুবারক করেন৤সুবহানাল্লাহ৤ সুতারাং সেই সম্মানিত নুর মুবারক থেকে মহান আল্লাহপাক তিনি যে বস্তু বা যে জিনিস বা যে বিষযকে যেভাবে আকৃতি বা ছুরত দিতে চেয়েছেন সেটি সেই আকৃতি বা ছুরতে প্রকাশ পেয়ে অস্তিদ্বের মধ্যে এসে বিকাশিত হয়েছেন. এই বিষয়টি কিন্তু মানুষ কখনও তার জ্ঞান বুদ্ধি আকল সমঝ দিয়ে উপলদ্ধি করতে পারবে না কারন সৃষ্টি জগতের সূচনার মধ্যে প্রকাশ পেয়েছে মহান আল্লাহপাক উনার বেমেছাল কুদরত মুবারক আর উনার হাবীব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু উনার বেমেছাল মুজিযা শরীফ উনার বহি:প্রকাশ৤সুবহানাল্লাহ৤

আর কুদরত মুবারক ও মুযিযা শরীফ বলা হয় সেই সমস্ত বিষয় মুবারককে যা মানূয়ের জ্ঞান বুদ্ধি, আকল সমঝকে অক্ষম করে দেয়৤ সুবহানাল্লাহ৤ তবে একটি দৃষ্টান্ত উপস্হাপনা করলে বিষয়টি বুজতে আমাদের জন্য সহজ হবে৤ মহান আল্লাহপাক উনার হাবিব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইাহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত নুর মুবারক থেকে সৃষ্টি একটি বস্তু হলো পানি৤ এখন এই পানি কিন্তু অবস্হোভেদে তিনটা ছুরত ধারন করে যেমন স্বাভাবিকভাবে তরল, ঠান্ডা করলে বরফ বা কঠিন আকার আবার তাপ দিলে বাষপীয় হয়ে বাতাসে মিশে যায়৤ তাহলে বলার বিষয় হলো মহান আল্লাহপাক উনার হাবিব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত নুর মুবারক থেকে সৃষ্টি পানি যদি তিনটা ছুরত ধারন করতে পারে তবে মহান আল্লাহপাক উনার হাবিব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত নুর মুবারক থেকে সৃষ্টিকৃত বস্তু কেন লক্ষ্য কোটি ছুরত ধারন করে প্রকাশিত হতে পারবে না? যদিও বা সৃষ্টির সূচনার সমস্ত প্র্িয়া মহান আল্লাহপাক উনার কুদরত ও উনার হাবীব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বেমেছাল মুয়িযা শরীফ উনার অন্তভূক্ত৤ সুবহানাল্লাহ৤

এই জন্য ইমামে আউয়াল মিন আহলে বাইতে রসুলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম হযরত আলী কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহু আলাইহিস সালাম তিনি বর্ননা মুবারক করেন-মানুষ যদি তার আক্বল দিয়ে শরীয়ত উনাকে বুঝতে পারত, তবে চামড়ার মোজা পরিহিত অবস্থায় অযু করার সময় পা মাছেহ করত নিচের দিকে উপরের দিকে নয়৤ কিন্তু শরীয়তের নিয়ম হলো পা মাছেহ করতে হবে উপরের দিকে, অথচ ময়লা লাগে নিচের দিকে৤ তাই মুসলমান উনাদের উচিৎ মহান আল্লাহপাক উনার হাবীব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উনার সংশ্লিষ্ট বিষয় গুলো যুক্তি তর্ক দিয়ে ফায়সালা না করে পবিত্র কুরআন শরীফ হাদীস শরীফ এবং উনার শান মান মুবারক অনুযায়ী ফায়সালা করা৤

অতএব, মহান আল্লাহপাক ও উনার হাবীব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উনারা আমাদেরকে সহ দুনিয়ার সকল মুসলমান পুরুষ মহিলা জ্বিন ইনসানকে মহান আল্লাহপাক উনার হাবীব হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উনার বেমেছাল শান মান ফাযায়িল ফযিলত বুজূর্গী সম্মান মুবারক এবং উনার সংশ্লিষ্ট সমস্ত বিষয় বিনা দলীলে মানার ও ওহাবী সালাফীদের বদ আক্বীদা থেকে বাচাঁর তৌফিক দান করুন৤ আমীন!!!!

Views All Time
2
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে