“নূহী ছাফীনা”


ইলাহী হাবীবা ঐ শাহযাদী উলা
কায়িনাত মাঝে তিনি রসূলী লালা।
সৃষ্টি জগতে তিনি সেরা আবিদা
মাখলূক্ব বেকারার পড়ে ক্বাছীদা।
আওলাদে রসূল ঐ নূহী ছাফীনা
জ্ঞানে-গুণে উনার নেই তুলনা।
বিলান আশিকা মাঝে তিনি রূহানী
মামদূহ আক্বার হন নয়নমণি।
ক্বদমে পড়ে অধম করুণা চাহি
হামেশা যেন গোলাম রাজিতে রহি।
দয়ার সাগরে ওগো হাফিযা উলা
রহম করুন মোরে আপনি আলা।
টানুন আঁধার হতে আলোর পথে
মুর্শিদা শাহযাদী দুই জগতে।
ভিখারীর দুয়াখানা করে কবুল
গোলামী করান হে রহীমা অতুল।
বাহরে উলূম ওগো জ্ঞানের খনি
ইলম দানে আমায় করুন ধনী।
লিখতে চাই মামদূহ আহালের শান
দিন মোরে শাহযাদী সেই অনুদান।

নূরানী ফুল

-মুহম্মদ মাসউদুল হক্ব (ফাহিম)

শাহযাদী শাহযাদী শাহযাদী ক্বিবলা
শাহযাদী শাহযাদী শাহযাদী ক্বিবলা ॥ 

শাহযাদী আওলাদে রসূল
মামদূহজীর তিনি নূরানী ফুল,
তিনি যে যামানার মূল
উনার ক্বদমে নাজাত দুকূল ॥

শাহযাদী আওয়াল ক্বিবলাজান
উনার ক্বদমে মোরা কুরবান,
উনার ক্বদমে থাকতে পারলে
হবে কামিয়াব দুজাহান ॥

শাহযাদী রসূলে নোমা
উনার ক্বদমে নিয়ামত জমা,
তিনি যে শ্রেষ্ঠ আলিমা
তাঁহাকে পেয়ে ধন্য মোরা ॥

শাহযাদী মামদূহর নয়ন-মণি
আম্মাজীর তিনি হৃদয়ের ধ্বনি,
তিনি হলেন নূরে নূরানী
তিনি যে প্রথমা শাহযাদী ॥

এসো মুসলিমারা দলে দলে
শাহযাদীর নূরানী ক্বদমে
উনার ক্বদমে থাকতে পারলে
জান্নাতী হবে মোদের জীবন ॥

শাহযাদী মোদের জানেরজান
মোরা উনার মুরিদান
শাহযাদীর ক্বদমে হবে কুরবান
এই অধম নাদানের জান ॥

 

 

শাহযাদী উলা

-মাহমুদা সুলতানা।
শাহযাদী উলার নূরে ধরণী উজ্বালা
তাঁর নিছবত পেয়ে
দোজাহানে শ্রেষ্ঠ কামিয়াব
মোদের শাহ দামাদ ক্বিবলা। 

এমন সুউচ্চ মাক্বামের অধিকারী
হন শাহযাদী উলা,
যাঁর নূরী নিছবতে মিলে
স্বয়ং মাবুদ ও মাওলা।

তাঁর তাজদীদে বাতিল হচ্ছে খান খান
তাঁর মুবারক চেহারা দেখলে-
ইবলিস শয়তান
হয়ে যায় মহা পেরেশান!

তিনি জান্নাতীবাগের মেহমান
তিনি নকশায়ে আম্মাজান,
তিনি শানে আলীশান
তাঁকে পেয়ে ধন্য শাহ দামাদজান!

যমীন মাতোয়ারা

-মুহম্মদ মুহিউদ্দীন
আম্মার কোলের নূর
শাহযাদী উলা
আম্মার কোলের নূর
হাদীয়ে আ’লা
ছল্লাল্লাহু আলাইকা হে নূরে হাদী
তব নূরে হয় সব নূরানী। 

যমীন নব সাজে
আহলান-সাহলান বলে,
আসমানেও ধুম
ঈদের কলরোলে
সবাই আত্মহারা
দেখে আক্বার নূর ॥

মদীনা ওয়ালা খুশি
আগমনে শাহযাদী
খুশি করেন মাওলা,
মুবারক এই ঈদে
আরশে পাক-এর ধ্বনি
মারহাবা শাহযাদী ॥

যমীনবাসী খুশি
পেয়ে হাবীবী নূর
দুরূদ-সালাম পড়ে
জ্বীন-ইনসান, হুর
ফেরেশতা মাতোয়ারা
মীলাদে শাহযাদীর ॥

আসমান-যমীন কাঁপে
তাশরীফের রোবে
দেখ কুফরী-শিরকী
পালাচ্ছে ভবে,
আগমন হলো ধরায়
আরশী নূর ॥

চন্দ্র-সূর্য হাসে
উনার নূর দেখে
নূরের আলোর চমকে
সূর্যের আলো ঢাকে,
মারহাবা, মারহাবা বলে
দেখে উনার নূর ॥

গুলে মদীনা শাহযাদীয়ে উলা

আমাতায়ে শাহযাদীয়ে উলা মুর্শিদা ইয়াছমিন
গুলে মদীনা শাহযাদীয়ে উলা
তাঁর তাশরীফে ধরা উজ্বালা। 

তাঁর আগমনে ধরা ধন্য
তাঁর আগমনে মুরীদ অনন্য।

তাঁহার রোবে শয়তান ভাগে
তাঁর আগমনে ইসলাম জাগে।

তব গোলামী চাই হে শাহযাদী
কবুল করুন অধমের আরজী।

ক্ষমা চাহি তব পাক ক্বদমে
ক্ষমা করুন এ অধমে।

নববী ধারার রওশন

-মুহম্মদ সাইয়্যিদুজ্জামান
নববী ধারার রওশন
আজ বইছে ধরা মাঝে,
আজ প্রথমা শাহযাদীর
সুরভী চুমে সে সাজে ॥ 

জান্নাত জুড়ে ফুটিছে
বাহারী ফুল উজ্বালা,
আসমান জুড়ে বহিছে
তারার ঝালরী মালা ॥

নববী গুলের বাহার
পাইছি মামদূহর দ্বারে
সে সুবাস গ্রহিতে আকুল
মু’মিনা আবদারে ॥

গুন গুন করে ক্বাছীদা
জপছি মোরা গোলামে
শাহযাদী উলার ইহসান
ছড়ায় সারা আলমে।

মেহবুবা গুল বাহারী
শাহ দামাদের বাগিচায়
বাঁকা চাঁদটা হাসে লাজে
বদনে কুবরা চমকায় ॥
ছলাত-সালাম নিয়ে
আসে মাদানী পয়গাম
মাতোয়ারা হুর মালাইক
চুমিতে পাক ক্বদমে ॥

মাদানী কুবরার পথে
আমি বেভুল মুসাফির
শাহযাদী উলার ক্বদমে
পাই আম্মাজী ক্বিবলার আবীর ॥

শানে শাহযাদী উলা

-মুহম্মদ মুহিউদ্দীন
দেখ দেখ ঈদে আঞ্জাম
মুবারক নিকাহ শাহযাদী উলার
ঝরে রহমত অবিরাম ॥ ঐ 

পড়ে উম্মাহ উনারই শান
উহাতেই মিলে যে ঈমান
চারদিকে আজ খুশিরই ধূম!
সজ্জিত হয় ধরাধাম ॥ ঐ

রুজু হও শাহযাদী পানে
সালাতু-সালাম উনার শানে,
তিনি মামদূহ’র লখতে জিগার
গোলামী করে তামাম ॥ ঐ

আসো সবে মুবারক ঈদে
শাহযাদীর রেযা লও হৃদে
ভয়-চিন্তা নাহি রবে
হবে সফলকাম ॥ ঐ

মুবারক এই খুশির দিনে
সকলকে নিবেন কাছে টেনে
আদর-সোহাগে রাখবেন ঢেকে
তিনি খোশ কারাম ॥ ঐ

খানকা উনার নূরে আভায়
পরিণত জান্নাতী বালায়
খিদমত করে হুর-গিলমান
হয়ে তাঁর গোলাম ॥ ঐ

বিলাদতী ঈদ

-গোলাম মুহম্মদ সোহেলুর রহমান
রোযার ঈদের চাঁদ উঠেছে
আসমানেতে ঐ দেখা যায়,
কিন্তু তোমরা খেয়াল করেছো!
চাঁদ রয়েছে কোন চিন্তায়? 

শাহযাদী উলা’র বিলাদতে আজ
ঈদুল ফিতরও করছে ঈদ,
সারা কায়িনাত রুজু হয়ে আছে
শাহযাদী উলা’র করতে দীদ।

পহেলা শাওয়াল ঈদের দিনে
সকল খুশিকে করিয়া বিলীন,
ফাতিমী নূর শাহযাদী উলা’র
তাশরীফে হলো জগত ইল্লিন।

ফাতিমী নূর শাহযাদী উলা
আম্মা ক্বিবলা’র হৃদয় ধ্বনি,
তাঁর পরশেই মিলছে মুক্তি
তাঁর ছোহবত ইশকের খনি।

ওহে বিশ্বের মুসলিমারা!
মুক্তি খুঁজছো তোমরা কোথায়?
পেরেশানী ছেড়ে ছুটে চলে আসো
মুজাদ্দিদ আ’যম-উনার নূরী হুজরায়!

সুন্নতী রঙে রঞ্জিত হতে
মুসলিমারা এসো দলে দলে,
ফাতিমী শানে শাহযাদী উলা
ফায়েজ বিলান দু’হাত মেলে!

শুকরিয়া করো পড়ো তলায়াল
সারা কায়িনাতে আজ খুশির জোয়ার,
শাহযাদী উলা, শাহযাদী উলা
ধ্বনিতে ধ্বনিতে করো একাকার।

শাহযাদী উলা’র নূরের পরশে
নূরানী হলো গোলামের হৃদ,
চাইছি করম দয়া ইহসান
গোলাম থেকেই হয় যেন নিদ।

ঈদের হাওয়া বয়

– মুহম্মদ হাফিজুর রহমান খান
শাহযাদী উলা- স্বাগতম, স্বাগতম! 

মুবারক দিনে মুরিদান, জানাই- স্বাগতম!
গ্রহেণ মোদের ছলাতু সালাম, জানাই- স্বাগতম।

শাওয়ালের হিলাল হেসে বলে- স্বাগতম!
আসমান যমীন নব সাজে বলে- স্বাগতম।

সবাই তাকবীর দাও, দরবার সাজাও
আলোর ঝিলিক ছড়াও, মুহব্বত বাড়াও
খুশিতে হেলে-দুলে সবে বলি- স্বাগতম!

ঝলমল করে জাহান, সব তাঁর আশিকান
শাহযাদীর মহাশান, দেখ- আলিশান
ইলাহী ফেরেশতাকুলে বলেন- স্বাগতম!

ঈদের হাওয়া বয়, নূরে সব নূরময়
সুন্নতের বিজয়, রাখেন যে অক্ষয়
হাবীবজী রওযা পাকে বলেন- স্বাগতম!

খাইরে কাছির আপনি, তাছীরে নূরানী
সুলতানায়ে ধরণী, নবীর রওশনী
জামালিয়াতের সুলতানা বলি- স্বাগতম!

ছানা-ছিফতে, জাতি নিসবতে
রাখুন খিদমতে, তব গোলামীতে
আশিক-আশিকারা বলে- স্বাগতম!

পাঞ্জাতনী ফুল

-মুহম্মদ সাইয়্যিদুজ্জামান
শাহে যাদী উলা, শাহে যাদী উলা
মাদানী বুলবুল,
ধরার বাগিচায় পাঞ্জাতনী ফুল ॥ 

জবানে হোক মোর তব ক্বাছীদা,
জওশনে জুলুসে দিওয়ানা বান্দা;
চাহে বান্দা চুমিতে
পাক ক্বদমী ধূল ॥

বিশ্ব মজলুমার ইলাহী রাহবার,
রসূলী নছবে ফাতিমা বার বার;
আপনাতে কারবালা ইশকে
কায়িনাত মশগুল ॥

রওযা পাকে জিবরীল- ফুলে ফুলে সাজায়,
আরশে মালা গাঁথে আসমানী তারায়;
“ শাহযাদী উলা” যিকিরে
মাতোয়ারা ওলী কুল ॥

বুকে মম হাহাকার ভিক্ষার আবদার,
নেক নজরে পাব নাজাত গুনাহগার;
ক্বদমের জমজম সুধায়
ডুবিতে ব্যাকুল ॥

নকশায়ে কুবরার নকশায়ে যাহরা,
নকশায়ে নববীর হায়দারী সিতারা;
আপনি তো (এ) বসুন্ধরায়
জান্নাত বাগী গুল ॥

তব তরে মামদূহজীর বদন লালে লাল,
খুশির আবেশে আম্মাজীও উজ্বাল;
মম হায়াত হাদিয়া হোক
এমনি থাক বিলকুল ॥

শাহযাদী উলার মহাশান

-মাওলানা মুহম্মদ নাজমুল হুদা ফরাজী, মাদারীপুর।
জ্ঞানে গুণে আলীশান
দয়া দানে অফুরান
হাদীরূপে আগুয়ান
জানাই উনায় মারহাবান! 

উনার লক্ষ-কোটি আশিকান
উনার আলোয় আলোয়ান
উনার দয়ায় ফায়েজ পান
উনার মায়ায় প্রাণ বিলান
প্রাণ বিলিয়ে ইতমিনান।

শাহযাদী উলার তাশরীফান
ধরা আলোয় জাগান
কুফরী শিরক মিটান
শত শত ওলী বানান
আল্লাহ রসূলকে চিনান।

মুবারক শাদী শাহযাদী উলার
ধরণীর মাঝে নেই তুলনা উনার
বিরল এই শাদী উপহার!
দিয়েছেন আল্লাহ ও হাবীব উনার
উপস্থাপন করেছেন মুজাদ্দিদ যামানার।

কোন চোখ দেখেনি
কোন কান শুনেনি
কোন দিল অনুভব করেনি
কোন ইতিহাসে লেখা হয়নি
শুনি আজ এমন শাদীর ধ্বনি!

দুলহা দুলহানের এমনই মিল
অনুভবে হয় ইতমিনান দিল
মিথ্যে নয় উহার একেবারে কলীল
কুরআন হাদীছ-এ যত দলীল
হাক্বীক্বী মিছদাক উনারা আল্লাহর খলীল।

Views All Time
4
Views Today
6
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+