পথে যেতে যেতে হঠাৎ চোখ আটকে গেল একটি দৃশ্য দেখে


পথে যেতে যেতে হঠাৎ চোখ আটকে গেল একটি দৃশ্য দেখে । একজন মা এবং তার ১৩ কি ১৪ বছরের একটি মেয়েকে সাথে নিয়ে কোথাও যাচ্ছে । কিন্তু আমার চোখ আটকে যাওয়ার কারণ হল মা বোরখা পড়েছে আর সাথের মেয়েটিকে পড়িয়েছে টাইট জিন্সের প্যান্ট আর টি শার্ট মাথায় আবার হিজাব । হাঁসবো না কাঁদবো ঠিক বুঝতে পারছিনা । কারণ হাঁসি পাচ্ছে এটা দেখে যে,একজন প্যান্ট-শার্ট আর একজন বোরখা পড়ে পাশাপশি হাঁটছে, অথচ দুজনই মহিলা । আবার কান্না পাচ্ছে এটা ভেবে যে, একজন মা তিনি কি করে মেয়েকে জাহান্নামের দিকে ঠেলে দিচ্ছেন । নিজে পর্দা করছেন আর মেয়েকে বেপর্দায় রাখছেন । এই মা কি জানেন না যে, একটি মেয়ে জাহান্নামে গেলে তার সাথে আরো তিনজন ব্যক্তি জাহান্নামে যাবে । fb বন্ধুরা আপনাদের কি জানা আছে? আর যদি জানা না থাকে তাহলে আসুন আমরা জেনে নেই সেই তিন ব্যক্তির কথা । যাদের কারণে একটি মেয়ে জাহান্নামে যাবে তারা হল- ১। পিতা ২। মাতা ৩। স্বামী কারণ একজন মেয়ে বিয়ের আগে পিতা-মাতার কাছে এবং বিয়ের পর স্বামীর কাছে থাকে। তাই তাদর দায়িত্ব ছিল দ্বীনি শিক্ষা দেওয়া এবং পর্দার মধ্যে রাখা । মহান আল্লহ পাক ইরশাদ মুবারক করেন-“তোমরা অর্থাৎ মহিলারা আইয়্যামে জাহিলিয়াতের মত সৌন্দর্য পদর্শন করে রাস্তায় ঘুরে বের হয়োনা’’। (পবিত্র সূরা- আহযাব/ আয়াত শরীফ ৩৩) আর হাদিস শরীফ উনার মধ্যে রয়েছে-“দাইয়্যুস কখনও জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না”। দাইয়্যুস কে ? সেই ব্যক্তি দাইয়্যুস যে নিজে এবং স্ত্রী ও কন্যাকে পর্দা করায় না । তাই আমারা সকল মহিলা যদি পিতা-মাতা ও স্বামীকে মুহব্বত করে থাকি তাহলে আমাদের উচিৎ হবে নিজেদের পর্দার মধ্যে রেখে পিতা-মাতা, স্বামী ও নিজেকে জাহান্নাম থেকে হিফাজত করা । মহান আল্লহ পাক আমাদের খাছভাবে পর্দা করার তওফিক দান করুন । আমিন

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে