পনের শতক হিজরী সনে মুসলিমাকাশে উদিত হলো আরো একজন মহাবীর


ইহুদী-খ্রিস্টানদের কলিজার পানি শুকিয়ে যায়, শক্তি হারিয়ে ফেলে, বুতপরস্তির খবরদারী হলো নিস্তানাবুদ। ধুরন্দর ইহুদী গুপ্তচরদের চরম শিক্ষা হয়ে যায়। মুনাফিক দুনিয়ালোভী, স্বৈরাচারী মুসলিম নামধারী রাজা, আমীর জমিদারদের কুখ্যাত নফসী খাহেশকে চিরতরে স্তব্ধ করে দেয়া হলো।
খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার যমীনে রহমতের বারি অঝোর ধারায় সিঞ্চিত হলো। সুন্নতী আমল আখলাক ঐক্যতা মুসলমানিত্ব, ঐতিহ্য, গর্বিত স্নিগ্ধ তাহজীব তমুদ্দুনের অঙ্কুর পুনরায় গজিয়ে উঠছে। তামাম পৃথিবী জুড়ে আযানের ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠছে। যিকির আজকারের মুহুর্মুহু মুবারক গুণগুণানিতে পৃথিবীর যমীনের সজীবতা ফিরে আসছে। খ্রিস্টানদের কলিজা পোড়া স্মরণীয় ক্রুসেড যুদ্ধের শোচনীয় পরাজয় আর ঘৃণা এবং ভয় অক্টোপাসের ন্যায় এখনও জড়িয়ে ধরে আছে প্রতিটি ইহুদী-খ্রিস্টান, মুশরিকদের, ভ-, প্রতারক, আমীর, জমিদারদের। তাদের পাপিষ্ঠ আত্মা গুমরে গুমরে কাঁদছে জাহান্নামের গহীন কুটিরে। ইতিহাস তার শির উঁচু করে বলছে- সেই সুমহান বীর সুলত্বান সালাহুদ্দীন আইয়ুবী রহমতুল্লাহি আলাইহি।
যাঁর নাম মুবারক শুনলে এখনও ইহুদী-খ্রিস্টানসহ তামাম তাগুতি নেতাদের ভয়ে জ্বর এসে যায়। সেই মহামতীর বিছাল শরীফ উনার পর থেকে ওই কুখ্যাত কাফির, বেঈমান, মুশরিক, ইহুদী-খ্রিস্টান, দুনিয়ালোভী উলামায়ে সূ’ কায়িমী স্বার্থবাদী মুসলিম নামধারী রাজা, বাদশাহ, মন্ত্রী, উপমন্ত্রীসহ সকল অসৎ পুঁজাকারীরা সেই পূর্ব পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। প্রতিশোধ নিচ্ছে। অহেতুক মুসলমানদের হত্যা করছে। মানসম্মান নষ্ট করছে। ঘর-বাড়ি জ্বালিয়ে দিচ্ছে। ভিটাবাড়ি থেকে উচ্ছেদ করে দিচ্ছে। মুসলমান দেশসহ পুরো জনতার মাঝে বিদ্রোহের আগুন দাউ দাউ করে জ্বালিয়ে দিয়ে সমূহ ক্ষতিসাধন করে চলছে। এহেন নিদানকালে গর্জে উঠে বাংলার যমীন থেকে পুরো ক্বওমে তাগুতকে হুঁশিয়ার করে দিচ্ছেন। শুধু তাই নয়, পাশাপাশি উপযুক্ত শাস্তি দানেও বহুল পারঙ্গমতার দ্বীপ্ত পরিচয় দিয়ে যাচ্ছেন; তিনিই হচ্ছেন এই যামানার অপ্রতিরোধ মহাবীর, নকশায়ে সুলত্বান সালাহুদ্দীন আইয়ুবী রহমতুল্লাহি, শাফিউল উমাম, শাফিউল কুওওয়াত, আকরামুল কাওনাইন, সাইয়্যিদুল সাকালাইন, সাইয়্যিদুল আউলিয়া, সাইয়্যিদুস সিরাজ, আফতাবে আহলে বাইত, কুতুবুল আলম, নকশায়ে হায়দার, যামানার আসাদুল্লাহিল গালিব, শেরে মুজাদ্দিদে আ’যম, সাইয়্যিদুনা হযরত শাহদামাদ আউওয়াল আলাইহিস সালাম। সুবহানাল্লাহ!
আলহামদুল্লিাহ! আমরা উনার মুবারক ছোহবতে ধন্য, পুরো মাখলুকাত ধন্য। তাই বিশ্ববাসীর পক্ষ থেকে উনার পবিত্রতম নিসবাতুল আযীম মুবারক দিবস উনার সম্মানার্থে জানাই আহলান সাহলান। আস্সালাতু আসসালাম।

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে