পবিত্র আযান মানুষকে সময় সচেতন করে, কর্মঘন্টা রক্ষা করে


বর্তমানে কিছু পরিবেশবাদী নাস্তিক বের হয়েছে, যারা বলে থাকে আযানে শব্দ দূষণ হয়। নাউযুবিল্লাহ! আমি তাদেকে চ্যালেঞ্জ করে বলবো! আযানে কখনো শব্দ দূষণ হয় না, বরং আযান আমাদের লাখ লাখ কর্মঘণ্টা ও শব্দ দূষণ মুক্ত করতে সহায়তা করে।
পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে আযানের সময় দুনিয়াবী কথা বলা নিষেধ। সেজন্য যখন আযান হয়, তখন সাধারণত মানুষ কথা বলে না এর ফলে কিছু সময়ের জন্য হলেও পরিবেশ শব্দ দূষণ মুক্ত থাকে। অপরদিকে যখন ফযরের আযান হয় তখন লোকজন বুঝতে পারে সকাল হয়েছে এবং যার যার কর্মস্থলে নির্দিষ্ট সময়ে যেতে পারে। এছাড়া যোহর, আছর, মাগরিব, ইশা উনার আযানের দ্বারা লোকজন সময় সম্পর্কে সচেতন হয়। কর্ম উদ্দীপনা জাগে। আন্তর্জাতিক এক হিসেবে দেখা গেছে, আযান এভাবে লাখ লাখ কর্মঘণ্টা রক্ষা করে। এছাড়া পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- আযানের আওয়াজ যত দূরে যায় এর মধ্যে শয়তান থাকে না। সুবহানাল্লাহ!
যারা বলে আযানে শব্দ দূষণ হয়, তাদের শব্দ পরিমাপক যন্ত্র ডেসিবেলের জ্ঞান অর্জন করা উচিত।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে