পবিত্র আশূরা শরীফ-এ অর্থ বরাদ্দ না দিয়ে হারাম মহিলা ক্রিকেট খেলার আয়োজনে এত টাকা কেন খরচ করা হচ্ছে- বাংলার মুসলমানরা তা জানতে চায়


পত্রিকায় লেখা হয়েছে- “খেলা আয়োজন তো নয়, টাকার শ্রাদ্ধ। কোটি কোটি টাকা বেরিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)’র কোষাগার থেকে। নারী বিশ্বকাপ ক্রিকেটের বাছাই প্রতিযোগিতায় খরচ দেখানো হচ্ছে ৪ কোটি ৩০ লাখ ৯৫ হাজার ৪৫৮ টাকা।” নাউযুবিল্লাহ মিন যালিক!
বাংলাদেশের মতো একটি বৃহৎ মুসলিম দেশ, যেখানে রাষ্ট্রধর্ম হচ্ছে দ্বীন ইসলাম। যে ইসলামে বেপর্দা হওয়া সম্পূর্ণ হারাম বা নিষিদ্ধ, যে ইসলামে যাবতীয় খেলাধুলাই হারাম বা নাজায়িয, যে দ্বীন ইসলামে অপচয়কারীকে শয়তানের ভাই বলা হলো- সেই রাষ্ট্রধর্ম ইসলামকে অবমাননা করে, অবজ্ঞা করে ইসলাম বিরোধী শয়তানি কাজের ব্যবস্থা করতে কোটি কোটি টাকা অপচয় করা হচ্ছে, লুটপাট করা হচ্ছে। পাশাপাশি দেশের কিশোর যুব সমাজকে বেপর্দা বেহায়াপনার দিকে উস্কে দেয়া হচ্ছে। এগুলো কিসের আলামত বহন করে। অথচ অল্প কিছুদিন পরেই মুসলমানদের অন্যতম পালনীয় বিশেষ দিবস পবিত্র আশূরা শরীফ। সেদিন মহান আল্লাহ পাক উনার পথে খরচ করার জন্য, ইসলাম পালন করার জন্য অনেক টাকা পয়সা অর্থের প্রয়োজন। সেই টাকার ব্যবস্থা মুসলমানদের জন্য না করে সরকার সেটা হারাম মহিলা ক্রিকেটে খরচ করছে। এটা মুসলমানরা কিছুতেই মেনে নিতে পারে না। অতএব, অবিলম্বে হারাম খেলার আয়োজন বন্ধ করা হোক এবং সমুদয় অর্থ মুসলমানদের মধ্যে বণ্টনের ব্যবস্থা করা হোক। এটা এদেশের মুসলমানদের প্রাপ্য ন্যায্য অধিকার সেটা সরকারকে বুঝতে হবে।

 

Views All Time
2
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+