পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উদযাপনে আবু লাহাবদের উত্তরসূরিদের প্রতি একটি ইবরত


পবিত্র রবীউল আউয়াল শরীফ মাসে সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উদযাপন করার প্রসঙ্গ আসলেই দুনিয়াদার ধর্মব্যবসায়ী উলামায়ে ছূ’র দল যারা ওহাবী সালাফীদের দীক্ষায় দীক্ষিত, তারা বলে থাকে এটা পালন করা বিদয়াত।এতে খুশিরই তো বা কি আছে? শুধু এতোটুকুই নয় তারা ইদানীং বলেছে- বারই রবীউল আউয়াল শরীফ ঈদ বা খুশি পালন করলে জাহান্নামী হতে হবে। (নাঊযুবিল্লাহ)
অথচ ছহীহ হাদীছ শরীফসহ বিশ্বখ্যাত অসংখ্য কিতাবে কাট্টা কাফির জাহান্নামী আবু লাহাবের প্রসঙ্গেই এমন একটি ঘটনা বর্ণিত রয়েছে যা পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর বিরোধীদের মুখে চুন-কালি পড়ার জন্য যথেষ্ট বলে মনে করি। যেমন ছহীহ বুখারী শরীফ-এর ২য় খণ্ডের ৭৬৪ পৃষ্ঠায় কিতাবুন নিকাহ অধ্যায়ে বর্ণিত রয়েছে- হযরত উরওয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, হযরত সুয়াইবা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা তিনি পূর্বে ছিলেন আবু লাহাবের বাঁদী। হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বিলাদত শরীফ-এ খুশি হয়ে আবু লাহাব উনাকে আযাদ করে দেয়। এরপর হযরত সুয়াইবা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা তিনি নূরে মুজাসসাম হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে দুধ পান করান। অতঃপর আবু লাহাব মারা যাবার কিছুদিন পরে হযরত আব্বাস রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি তাকে স্বপ্নে দেখলেন যে, সে ভীষণ আযাব-গযবে গ্রেফতার হয়ে আছে। তিনি তাকে জিজ্ঞাসা করলেন, তোমার সাথে কিরূপ ব্যবহার করা হয়েছে? আবু লাহাব উত্তরে বললো, মরার পর থেকে ভীষণ কষ্টে রয়েছি। তবে বাঁদী হযরত সুয়াইবা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা উনাকে দু’আঙুলের ইশারায় আযাদ করার কারণে তা থেকে কিছু ঠাণ্ডা সুমিষ্ট পানি পান করতে পারছি। অর্থাৎ হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র বিলাদত শরীফ-এ খুশি প্রকাশ করে বাঁদীকে আযাদ করার কারণে আল্লাহ পাক তিনি আবু লাহাবকে কাট্টা কাফির জাহান্নামী হওয়া সত্ত্বেও প্রতি সোমবার শরীফ-এ আযাব কিছুটা লাঘব করে দেন। (সুবহানাল্লাহ)
উপরোক্ত ঘটনা থেকে আবু লাহাবের উত্তরসূরি ধর্মব্যবসায়ী ওহাবী সালাফী মওদুদী গংদের ইবরত হাসিল করা উচিত এবং অবিলম্বে তওবা করে ভবিষ্যতে সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ পবিত্র ঈদে মীলাদুন নবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উদযাপন করার যাবতীয় প্রস্থতি গ্রহণে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হওয়া। নতুবা আবু লাহাবের চেয়েও নিকৃষ্ট পরিণতি ভোগ করা ছাড়া তাদের কোনো উপায় থাকবে না।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে