পবিত্র কুরবানী শরীফ উনার জন্য মু’মিন-মুসলমানদেরকে আন্তরিকভাবে প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে


পবিত্র যিলহজ্জ শরীফ মাস আমাদের মাঝে বিরাজমান। এই মহান মাসটি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার ঘোষণামতে হারাম মাস উনার অন্তর্ভুক্ত। এ পবিত্র মাসে পবিত্র পশুর রক্ত প্রবাহিত করা অর্থাৎ পবিত্র কুরবানী শরীফ সম্পাদন করা হয়ে থাকে।  পবিত্র কুরবানী শরীফ উনার জন্য যে পশু জবাই দিতে হবে সে বিষয়েও সাধারন মুসলমানদের ইলম নেই বললেই চলে। এখন অনেকটা রছম-রেওয়াজ হিসেবে মানুষ পবিত্র কুরবানী শরীফ দিয়ে থাকেন। ভালো মানসম্মত, ছহীহ তর্জ-তরীক্বায় যে পশু জবেহ করতে হবে, সেটার সুষম বণ্টন করতে হবে, টাকা পয়সাগুলো হালাল হতে হবে, রিয়া বা লোক-দেখানো যে চলবে না- এসব চিন্তা কতজন যে মাথায় রাখে তা সত্যিই লক্ষণীয়। অনেকে তো দায়সারাভাবে পবিত্র কুরবানী শরীফ করে থাকে, পাছে না জানি লোকে কি বলে! আর অনেকে বিপুল পরিমাণ হালাল অর্থের অধিকারী হয়েও অত্যন্ত কৃপণতার সাথে পবিত্র কুরবানী শরীফ করে থাকে। নাউযুবিল্লাহ!
অথচ পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে- “সাধ্য-সামর্থ্য-সুযোগ থাকার পরও যে ব্যক্তি পবিত্র কুরবানী শরীফ করবে না সে যেন আমাদের ঈদগাহের নিকটেও না আসে।” এতে বুঝা গেল পবিত্র কুরবানী শরীফ করার মতো করতে হবে। আর সেজন্য এখন হতেই প্রত্যেক মু’মিন মুসলমানকে আন্তরিকভাবে প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে।

Views All Time
1
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে