পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ২৮ তারিখ ইয়াওমুল আরবিয়া শরীফ বা বুধবার দিনে ৬৩ বছর বয়স মুবারকে ১০৩৪ হিজরী সনে মুজাদ্দিদুয যামান হযরত শায়েখ আহমদ ফারূকী সিরহিন্দী হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি মহান আল্লাহ পাক উনার মুবারক দীদারে মিলিত হন


বর্তমান মাসটিই হচ্ছে পবিত্র ছফর শরীফ মাস। যে মাস উনার মধ্যে পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফসহ আরো অনেক বিশেষ বিশেষ দিন ও রাত মুবারক রয়েছে। যা বান্দা-বান্দী ও উম্মত উনাদের জন্য অশেষ রহমত, বরকত, নিয়ামত, সাকীনা ও নাজাত লাভের কারণ।

পবিত্র ছফর মাস উনার সম্মান, ফাযায়িল-ফযীলত ও গুরুত্ব সম্পর্কে নছীহত মুবারক পেশ করতে গিয়ে তিনি উপরোক্ত ক্বওল শরীফ উল্লেখ করেন। পবিত্র হিজরী সন উনার দ্বিতীয় মাস হচ্ছে ‘পবিত্র ছফর শরীফ’। ফযীলত ও বুযূর্গীর ক্ষেত্রে এ পবিত্র মাসটিও এক বিশেষ স্থান দখল করে আছে। এ পবিত্র মাস উনারই শেষ ইয়াওমুল আরবিয়া বা বুধবার হচ্ছেন- ‘পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফ’। সুবহানাল্লাহ! এ মুবারক দিন উনার ফযীলত সম্পর্কে বর্ণিত আছে যে, সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, রহমতুল্লিল আলামীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার তৃতীয় সপ্তাহ থেকে মারীদ্বী শান মুবারক প্রকাশ করেন। অতঃপর পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ৩০ তারিখ ইয়াওমুল আরবিয়া শরীফ বা বুধবার দিন সকাল বেলা তিনি ছিহ্হাতী শান মুবারক প্রকাশ করেন এবং পবিত্র মসজিদে নববী শরীফ গমন করেন এবং নামাযের ইমামতিও করেন। এ খুশিতে সকল হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা সর্বোচ্চ সাধ্য-সামর্থ্য অনুযায়ী হাদিয়া মুবারক পেশ করেন এবং দান-খয়রাতও করেন। সুতরাং হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনাদেরকে অনুসরণ করে এ দিনটিতে খুশি প্রকাশ করা রহমত, বরকত, সাকীনা হাছিলের কারণ। সুবহানাল্লাহ! পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনারই ২৮ তারিখে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার লখতে জিগার, বেহেশতের যুবক উনাদের সাইয়্যিদ ইমামুছ ছানী মিন আহলি বাইতি রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যদুনা হযরত ইমাম হাসান আলাইহিস সালাম তিনি পবিত্র শাহাদাতী শান মুবারক প্রকাশ করেন। যিনি পবিত্র আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের অন্যতম। উনার মুহব্বত হচ্ছে পবিত্র ঈমান। সম্মানিত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুহব্বত সম্পর্কে পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “তোমরা সম্মানিত আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করো আমার সন্তুষ্টি মুবারক হাছিলের জন্য।” সুবহানাল্লাহ! আর এ পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার ২৮ তারিখ ইয়াওমুল আরবিয়া শরীফ বা বুধবার দিনে ৬৩ বছর বয়স মুবারকে ১০৩৪ হিজরী সনে মহান আল্লাহ পাক উনার খালিছ ওলী, আফযালুল আউলিয়া, ক্বইয়্যূমে আউওয়াল, মুজাদ্দিদুয যামান হযরত শায়েখ আহমদ ফারূকী সিরহিন্দী হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি দুনিয়া থেকে বিদায় নিয়ে মহান আল্লাহ পাক উনার মুবারক দীদারে মিলিত হন। সুতরাং আরবী অন্যান্য মাস উনার ন্যায় পবিত্র ছফর শরীফ মাসটিও মুসলমান উনাদের জন্য অত্যন্ত ফযীলতপূর্ণ। বর্তমান মাসটিই হচ্ছেন সুমহান বরকতময় পবিত্র ছফর শরীফ মাস। আর পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার মধ্যে পবিত্র আখিরী চাহার শোম্বাহ শরীফসহ আরো অনেক বিশেষ বিশেষ দিন ও রাত মুবারক রয়েছে। যা মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের খাছ রেযামন্দি মুবারক হাছিলের মাধ্যম। সুবহানাল্লাহ! তাই সকলের জন্য ফরয হচ্ছে- আগত পবিত্র ছফর শরীফ মাস উনার বিশেষ বিশেষ দিন ও রাত মুবারকগুলো যথাযথভাবে পালন করে রহমত, বরকত, নিয়ামত, সাকীনা হাছিল করার কোশেশ করা।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে