পবিত্র মুহররমুল হারাম শরীফ মাস উনার সাথে সংশ্লিষ্ট বিশুদ্ধ আক্বীদাসমূহ


১. সমস্ত হযরত নবী রসূল আলাইহিমুস সালাম উনারা মাছুম বা নিষ্পাপ। উনাদের কোনো প্রকার দোষ-ত্রুটি এমনকি কোনো অপছন্দনীয় কাজ ও নেই। উনারা হচ্ছেন পবিত্র ওহী মুবারক দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। (আকাইদে নসফী)
২. হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি ছিলেন জলীলুল ক্বদর ছাহাবী, আমীরুল মু’মিনীন, খলীফাতুল মুসলিমীন, কাতিবীনে ওহী মুবারক উনার সদস্য, পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার রাবী, ফক্বীহ, গুপ্তভেদ জাননেওয়ালা ছাহাবী ইত্যাদি মর্যাদার অধিকারী ছিলেন। তিনি ছিলেন অন্যতম ইনছাফগার বা ন্যায় বিচারক খলীফা। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সাথে জিহাদে অংশগ্রহণকারী। সুবহানাল্লাহ!
পক্ষান্তরে ইয়াযীদ লা’নতুল্লাহি আলাইহি সে ছিলো কাট্টা মুনাফিক, কাফির এবং ইমামুস ছালিছ সাইয়্যিদুনা হযরত ইমাম হুসাইন আলাইহিস সালাম উনাকে শহীদকারী। এখন বদবখত ইয়াযীদ লা’নতুল্লাহি আলাইহি’র জন্য হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনাকে দোষারোপ করা যাবে না।
কাবিলের জন্য যেমন সাইয়্যিদুনা হযরত আদম ছফীউল্লাহ আলাইহিস সালাম উনাকে এবং কেনানের জন্য জলীলুল ক্বদর রসূল হযরত নূহ্ আলাইহিস সালাম উনাকে দোষারোপ করা যাবে না।
মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “একজনের গুনাহের বোঝা অন্য জন বহন করবে না।” (পবিত্র সূরা আনয়াম শরীফ: পবিত্র আয়াত শরীফ ১৬৪)
৩. পবিত্র আশূরা শরীফ উনার উপলক্ষে আলোচনা করতে গিয়ে যারা ছাহিবে সির, কাতিবে ওহী, আমীরুল মু’মিনীন, খলীফাতুল মুসলিমীন হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনাকে দোষারোপ করে, তারা মূলত উনার মহান মর্যাদা সম্পর্কে নেহায়েতই অজ্ঞ।
* আমীরুল মু’মিনীন, খলীফাতুল মুসলিমীন হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামূল মুরসালীন, খাতামুন নাবিয়ীন, নুরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার ছাহাবীগণ উনাদের মধ্যে একজন বিশেষ শ্রেণীর ছাহাবী যাকে ‘উলুল আ’যম বা জলীলুল ক্বদর’ ছাহাবী বলা হয়। সুবহানাল্লাহ!
* ‘মুসলিম শরীফ’ উনার মধ্যে উল্লেখ আছে, আমীরুল মু’মিনীন হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার বুযূর্গ পিতা হযরত আবু সুফিয়ান রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামূল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার দরবার শরীফ উনার নিকট এসে আরজ করলেন, ইয়া রসূলাল্লাহ, ইয়া হাবীবাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনাকে আপনি কাতিবে ওহী নিযুক্ত করলে ভালো হতো। আখিরী রাসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনাকে কাতিবে ওহী নিযুক্ত করলেন। সুবহানাল্লাহ!
* ‘তিরমিযী শরীফ’ উনার মধ্যে উল্লেখ আছে, হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনাকে আখিরী রাসূল, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি খাছ দোয়া করেছেন এভাবে, আয় আল্লাহ পাক! হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনাকে হাদী ও হিদায়েত প্রাপ্ত করুন এবং উনার দ্বারা লোকদের হিদায়েত দান করুন। সুবহানাল্লাহ!
* আমীরুল মু’মিনীন হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার মর্যাদা-মর্তবার মধ্যে অন্যতম মর্যাদা হলো- তিনি ছিলেন একজন আদিল বা ইনসাফগার খলীফা। অর্থাৎ খলীফাতুল মুসলিমীন, আমীরুল মু’মিনীন। উনার ন্যায়বিচার ও ইনসাফ সম্পর্কে কিতাবে উল্লেখ করা হয়, জান্নাতের সুসংবাদপ্রাপ্ত ছাহাবী হযরত সা’দ ইবনে আবী ওয়াক্কাস রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন, “আমার দৃষ্টিতে সাইয়্যিদুনা হযরত উছমান যুন নূরাইন আলাইহিস সালাম আনহু উনার পর আমীরুল মু’মিনীন হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার চেয়ে অধিক ন্যায়বিচারক কেউ নেই।” সুবহানাল্লাহ!
* আমিরুল মু’মিনীন হযরত মুয়াবিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার অসংখ্য ফযীলতের মধ্যে আরো একটি ফযীলত হলো, তিনি যমীনে থাকতেই সম্মানিত জান্নাত উনার সুসংবাদ পেয়েছেন। যদিও তিনি আশারায়ে মুবাশশিরার অন্তর্ভুক্ত নন। সুবহানাল্লাহ! এ প্রসঙ্গে পবিত্র ‘বুখারী শরীফ’ উনার মধ্যে উল্লেখ আছে, আখিরী রাসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “আমার উম্মতের প্রথম যে দল সমুদ্রের যুদ্ধে অংশগ্রহণ করবে, উনাদের জন্য জান্নাত ওয়াজিব।” তিনি ২৮ হিজরী সনে সর্বপ্রথম সমুদ্র যুদ্ধের মাধ্যমে কাবরাসের উপর আক্রমণ করেন এবং কাবরাস তিনিই বিজয় করেন।
৪. হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা মাহফুজ। উনাদের মুহব্বত করা ঈমান এবং বিদ্বেষ পোষণ করা কুফরী। উনারা হচ্ছেন ঈমানের মাপকাঠি।
৫. মর্র্সিয়া গেয়ে, তাজিয়া বানিয়ে বুক চাপড়িয়ে মিছিল সহকারে হা-হুতাস করা এই দিনের মর্যাদা হানির নামান্তর।

Views All Time
2
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে