পবিত্র রজবুল হারাম মাসে ইবাদতের পুরস্কার


হিজরী পঞ্চম শতাব্দীর মুজাদ্দিদ, হুজ্জাতুল ইসলাম হযরত ইমাম গাযযালী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি উনার সুপ্রসিদ্ধ ‘মুকাশাফাতুল কুলূব’ কিতাবে বর্ণনা করেন, “এক মহিলা রজব মাসে প্রতিদিন বাইতুল মুকাদ্দাস শরীফ-এ গিয়ে বারো হাজারবার সূরা ইখলাছ পাঠ করতেন। উনার আদত ছিল, রজব মাসে তিনি নিয়মিত পশমের কাপড় পরিধান করতেন। একদা তিনি অসুস্থ হয়ে যান এবং পুত্রকে তিনি ওছিয়ত করেন যে, মৃত্যুর পর উনার পশমের পোশাকটিও যেন উনার সাথে দাফন করে দেয়। কিন্তু পুত্র সেই ওছিয়ত পালন না করে মৃত্যুর পর উনাকে উৎকৃষ্ট কাপড়ে দাফন করে। অতঃপর সে এক রাত্রিতে স্বপ্নে দেখলো, তার মা তাকে বলছেন, ‘আমি তোমার প্রতি অসন্তুষ্ট, তুমি আমার ওছিয়ত পালন করনি।’ পুত্র চিন্তিত হয়ে মায়ের পশমের লিবাসখানি কবরে রাখার জন্য আবার কবর খুঁড়লো, কিন্তু কি আশ্চর্য! মা কবরে নেই। এমন সময় গাইব থেকে আওয়াজ আসলো, ‘ওহে! তুমি কি জান না, রজব মাসে যে আমার ইবাদত করে আমি তাকে নির্জন একাকিত্বে ফেলে রাখি না।”
কাজেই প্রত্যেকের উচিত এ মাস থেকেই ইবাদতের জন্য যথাসাধ্য নিবেদিত হওয়া এবং এজন্য মহান আল্লাহ পাক উনার নিকট আরজু পেশ করা। মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদেরকে তাওফীক দান করুন। আমীন!

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে