পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনকারী উনাদেরকে স্বয়ং নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনিই শাফায়াত মুবারক করবেন


পরকালে মানুষের মুক্তিতে শাফায়াত বা সুপারিশ করবে কে? হযরত নবী-রসূল আলাইহিমুস সালাম উনারা ব্যতিত আর কেউ কি মানুষের জন্য সুপারিশ করতে পারবে? শাফায়াতের একচ্ছত্র ক্ষমতাই বা কার?
এককথায় মহান আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টিপ্রাপ্ত বান্দাগণ উনারাই শাফায়াতপ্রাপ্ত এবং শাফায়াত করার অনুমতি প্রাপ্ত। সুবহানাল্লাহ!
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন-
اذّخرتُ شفاعتی لأهل الکبائر من امّتی
অর্থ: ‘আমার মুবারক সুপারিশকে আমার উম্মতের কবীরা গুনাহকারীদের জন্য সঞ্চিত রেখেছি।’ (ইবনে মাজাহ শরীফ)
পরকালে শুধুমাত্র নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনিই সুপারিশ করবেন এবং উনার সম্মানার্থে সেখানে অন্যদেরকেও সুপারিশ করার ক্ষমতা মহান আল্লাহ পাক তিনি প্রদান করবেন। আর উনারা হলেন- হযরত ফিরেশতা আলাইহিমুস সালাম, মহান আল্লাহ পাক উনার প্রিয় বান্দা ওলীআল্লাহগণ, নিষ্পাপ মাছুম বান্দা, পরিত্র রোযা, পবিত্র কুরআন শরীফ ও পবিত্র কুরআন শরীফ তিলাওয়াতকারী। সুবহানাল্লাহ!
জানা ফরয যে, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হলেন সমস্ত কায়িনাতের জন্য একমাত্র শাফায়াতে কুবরার মালিক।
কারা প্রিয়নবী নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সুপারিশ লাভে ধন্য হবে তাও সুস্পষ্ট ভাষায় ঘোষণা করা হয়েছে। পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে-
قَالَ النَّبِـىُّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ مَنْ عَظَّمَ مَوْلِدِىْ وَهُوَ لَيْلَةُ اثْنَـىْ عَشَرَ مِنْ رَّبِيْع الْاَوَّلِ بِاتِّـخَاذِه فِيْهَا طَعَامًا كُنْتُ لَه شَفِيْعًا يَّوْمَ الْقِيَامَةِ وَمَنْ اَنْفَقَ دِرْهَـمًا فِـىْ مَوْلِدِىْ اِكْرَامًا فَكَاَنَّـمَا اَنْفَقَ جَبَلًا مِّنْ ذَهَبٍ اَحْمَرَ فِـى الْيَتَامٰى فِـىْ سَبِيْلِ اللهِ
অর্থ: “নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, যে ব্যক্তি খাদ্য খাওয়ানের মাধ্যমে আমার মহাসম্মানিত বরকতময় বিলাদত শরীফ মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র ১২ই রবী‘উল আউওয়াল শরীফ রাত (ও দিবস) উনাকে যথাযথভাবে সম্মান করবেন, আমি ক্বিয়ামতের দিন তার জন্য পবিত্রতম শাফায়াতকারী হবো। সুবহানাল্লাহ! আর যে ব্যক্তি আমার মহাপবিত্র বরকতময় বিলাদত শরীফ উনার সুমহান সম্মানার্থে এক দিরহাম খরচ করবেন, সে ব্যক্তি ইয়াতীমদেরকে মহান আল্লাহ পাক উনার রাস্তায় এক পাহাড় পরিমান লাল স্বর্ণ দান করার ফযীলত লাভ করবেন। সুবহানাল্লাহ! (নি’মতে কুবরা উর্দূ ১১ পৃষ্ঠা)
কাজেই পবিত্র সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ পালনকারী-সহযোগিতাকারী ও সংশ্লিষ্টরা নাজাত তো পাবেন বটেই বরং অনেককে নাজাত প্রদানের যোগ্যতা রাখবেন। পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালনকারী উনাদেরকে স্বয়ং নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনিই শাফায়াত মুবারক করবেন এমনকি শাফায়াত মুবারক করার এখতিয়ার দিবেন। সুবহানাল্লাহ!

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে