পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ উনার বোনাস চালু করুন


যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি সম্মানিত কিতাব কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন- “সমস্ত কাফির-মুশরিক মুসলমানদের শত্রু। তোমরা কখনই তাদেরকে বন্ধুরূপে গ্রহণ করিও না” এবং তাদেরকে অনুসরণ করিও না।
কাজেই নববর্ষ সেটা বাংলা হোক, ইংরেজ হোক, আরবী হোক ইত্যাদি সবই ইহুদী-নাছারা, বৌদ্ধ, মজুসী, মুশরিকদের তর্জ-তরীক্বা যা পালন করা থেকে বিরত থাকা সকল মুসলমানের জন্য ফরয-ওয়াজিব। অতএব, পহেলা বৈশাখ, পহেলা জানুয়ারি, পহেলা মুহররম ইত্যাদি নববর্ষ পালন করার জন্য উৎসাহিত করা এবং এদিনে ভালো খাবারের ব্যবস্থা করা কাট্টা হারাম ও কুফরী; যা থেকে বিরত থাকা সকল মুসলমানের জন্য ফরয-ওয়াজিব।
আর বাংলাদেশ সরকার এই পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে বোনাস দেয়ার ঘোষণা করেছে। নাউযুবিল্লাহ!
অথচ এদেশের মুসলমানরা কখনোই কুফরী-শিরকী এ দিবসের জন্য বোনাস দাবি করেনি। বরং মুসলমানদের দাবি হলো- পবিত্র ১২ই রবিউল আউয়াল শরীফ পবিত্র সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ উনাকে উপলক্ষ করে সরকারী বরাদ্দ, বাজেট, বোনাস ইত্যাদির জন্য দীর্ঘদিন থেকেই দাবি করে আসছেন। কিন্তু সরকারী আমলারা জ্ঞানশূন্য ও জনবিচ্ছিন্ন হওয়ায় জনগণের দাবি ও মনোভাব বুঝতে পারছে না। বরং কুচক্রী মহলের দ্বারা বিভ্রান্তির শিকার হয়েই তারা ইসলামবিরোধী বিষয়ে বোনাস দিচ্ছে, বরাদ্দ দিচ্ছে। এটা এদেশের মুসলমানদের সাথে প্রতারাণামূলক আচরন।
তাই সরকারের উচিত- বৈশাখের বোনাসের পরিবর্তে কিন্তু সরকারের উচিত ছিল রবীউল আউওয়াল শরীফ বা পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবী ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উপলক্ষে বোনাস প্রদান করা।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে