পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার আলোকে বর্তমানে চরম নির্যাতিত ও নিপীড়িত মানবতার একমাত্র মুক্তির দিশারী, নাজাতের কাণ্ডারী কে?


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার আলোকে খলীফাতুল মুসলিমীন, আমীরুল মু’মিনীন মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ আলাইহিছ ছলাতু ওয়াস সালাম তিনিই হচ্ছেন বর্তমান বিশ্বের এই চরম নির্যাতিত ও নিপীড়িত মানবতার একমাত্র মুক্তির দিশারী, নাজাতের কাণ্ডারী। সুবহানাল্লাহ!

উনার পবিত্র শান মুবারক-এ অন্য পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,

عَنْ حَضْرَة جَابِر الصَّدَفـِىِّ رَضِىَ اللهُ تَعَالى عَنْهُ قَالَ قَالَ رَسُوْلُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَكُوْنُ بَعْدِىْ خُلَفَاءُ وَبَعْدَ الـْخـُلَفَاءِ اُمَرَاءُ وَبَعْدَ الْاُمَرَاءِ مُلُوْكٌ وَبَعْدَ الْـمُلُوْكِ جَبَابِرَةٌ وَبَعْدَ الْـجَـبَابِرَةِ يـَخْرُجُ رَجُلٌ مِنْ اَهْلِ بَـيْتـِىْ يَـمْلَاُ الْاَرْضَ عَدْلًاـ
“হযরত জাবির ছদাফী রদ্বিয়াল্লাহু তা’য়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, যিনি সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, আমার পরে হযরত খলীফা আলাইহিমুস সালাম উনাদের যুগ, হযরত খলীফা আলাইহিমুস সালাম উনাদের পর আমীর-উমরাদের যুগ, আমীর-উমারাদের পর রাজা-বাদশাহদের যুগ তথা রাজতন্ত্র। রাজতন্ত্রের পর হবে চরম অত্যাচারী, চরম যালিম, চরম অহঙ্কারী, চরম প্রতাপশালী, চরম লুটেরা, চরম স্বৈরাচারী, চরম নাফরমান, চরম উদ্ধত্য, চরম গুমরাহ, চরম পথভ্রষ্ট, চরম বিভ্রান্ত, চরম গুমরাহকারী, চরম পথভ্রষ্টকারী, চরম বিভ্রান্তকর শাসকদের শাসন ব্যবস্থা তথা জোর জবরদস্তিমূলক শাসন ব্যবস্থা, যুলুমতন্ত্র তথা সমাজতন্ত্র, গণতন্ত্র। (তখন অবাধ্যতা, ঔদ্ধত্যতা, কঠোরতা, অহমিকা, ধৃষ্টতা, উচ্ছৃঙ্খলতা, ফিতনা-ফাসাদ, বেপর্দা-বেহায়া, অত্যাচার-অবিচার, যুলুম-নির্যাতনে, বেইনসাফীতে পুরো পৃথিবী ভরে যাবে, কোথাও পবিত্র ইনসাফ মুবারক উনার লেশমাত্র অবশিষ্ট থাকবে না।) অতঃপর আমার হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মধ্য থেকে আমার একজন খাছ আওলাদ, একজন মহান খলীফা আলাইহিস সালাম তিনি দুনিয়ার যমীনে তাশরীফ মুাবরক নিবেন। তিনি দুনিয়ার যমীনে তাশরীফ মুাবরক নিয়ে পুরো পৃথিবী, সারা কায়িনাত পবিত্র ইনসাফ মুবারক দ্বারা পরিপূর্ণ করে দিবেন তথা সারা বিশ্বে, সারা কায়িনাত সম্মানিত খিলাফত আলা মিনহাজিন নুবুওওয়াহ মুবারক প্রতিষ্ঠিা করবেন।” সুবহানাল্লাহ! (দায়লামী শরীফ ৫ম জিলদ ৪৫৬ পৃষ্ঠা, ইসতিয়াব ১ম জিলদ ১৩৭ পৃষ্ঠা)

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে