পবিত্র ১৪ই যিলক্বদ শরীফ “সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ” উনার অন্তর্ভুক্ত


আরবী বছর উনার এগারতম মাস হলো পবিত্র যিলক্বদ শরীফ। মহান আল্লাহ পাক উনার ও উনার হাবীব, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাদের তরফ থেকে ঘোষণাকৃত চারটি হারাম বা সম্মানিত মাসসমূহ উনাদের অন্যতম পবিত্র যিলক্বদ শরীফ। এ মাস সম্মানিত ও ফযীলতপূর্ণ হওয়ার একটি বিশেষ কারণ হচ্ছে এ মাসের ১৪ তারিখ দিনটি হচ্ছে সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার লক্ষ্যস্থল আওলাদ এবং যামানার লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ, যামানার সুমহান মুজাদ্দিদ ও ইমাম, সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার এবং যামানার লক্ষ্যস্থল মহিলা ওলীআল্লাহ, আওলাদে রসূল, উম্মুল উমাম, সাইয়্যিদাতুন নিসা, হযরত আম্মা হুযূর ক্বিবলা আলাইহাস সালাম উনাদের মনোনীত, পছন্দনীয়, কবুলকৃত, ¯েœহধন্য দামাদ, শাফিউল উমাম সাইয়্যিদুনা হযরত শাহদামাদ আউওয়াল ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার পবিত্র বিলাদত শরীফ উনার দিন। সুবহানাল্লাহ!
আর শাফিউল উমাম সাইয়্যিদুনা হযরত শাহদামাদ আউওয়াল ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি হচ্ছেন সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আহলে বাইত, আওলাদ আলাইহিমুস সালাম উনাদের অন্যতম। সুবহানাল্লাহ! উনাকে মুহব্বত করা, ইজ্জত-সম্মান করা, খিদমত করা কায়িনাতবাসীর জন্য ফরয-ওয়াজিব উনার অন্তর্ভুক্ত।
এ প্রসঙ্গে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হে আমার হাবীব ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! আপনি বলুন, আমি তোমাদের নিকট কোন বিনিময় চাই না। (উম্মতের পক্ষে বিনিময় দেয়াটাও কখনই সম্ভব নয়)। তবে তোমাদের দায়িত্ব হচ্ছে আমার আপনজন অর্থাৎ হযরত আহলু বাইত ও আওলাদ আলাইহিমুস সালাম উনাদের প্রতি মুহব্বত রাখবে।” (পবিত্র সূরা শূরা শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ২৩)
পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “মহান আল্লাহ পাক উনাকে তোমরা মুহব্বত করো। কেননা, তিনি তোমাদের প্রতি খাওয়া-পরার মাধ্যমে অনুগ্রহ করে থাকেন। আর আমাকে তোমরা মুহব্বত করো মহান আল্লাহ পাক উনার মুহব্বত পাওয়ার জন্য। আর আমার আহলে বাইত তথা আওলাদ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করো আমার মুহব্বত পাওয়ার জন্য।” (তিরমিযী শরীফ, মিশকাত শরীফ)
অতএব, খালিক মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার এবং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং যামানার লক্ষ্যস্থল সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার এবং উনার সম্মানিত নূরী আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুহব্বত ও সন্তুষ্টি মুবারক পেতে হলে অবশ্যই শাফিউল উমাম সাইয়্যিদুনা হযরত শাহদামাদ আউওয়াল ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনাকে মুহব্বত ও সন্তুষ্ট করতে হবে। কেননা, উনাকে মুহব্বত ও সন্তুষ্ট করতে পারলে সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনাকে এবং উনার সম্মানিত নূরী আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে সন্তুষ্ট করা সম্ভব। আর উনারা সন্তুষ্ট হলে স্বয়ং নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এবং খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনারাও সন্তুষ্ট হন।
তাই পবিত্র ১৪ই যিলক্বদ শরীফ উনাকে ঈদ হিসেবে উদযাপন করতে হবে, যা মূলত সাইয়্যিদুল আইয়াদ শরীফ উনারই অন্তর্ভূক্ত। সুবহানাল্লাহ!
মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং উনার হাবীব সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এবং সাইয়্যিদে মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি এবং উনার সম্মানিত নূরী আহলে বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনারা যেন আমাদের সকলকে শাফিউল উমাম হযরত শাহদামাদ আউওয়াল ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনাকে হাক্বীক্বীভাবে মুহব্বত, তা’যীম-তাকরীম, খিদমত ও ছান-ছিফত করার এবং পবিত্র ১৪ই যিলক্বদ শরীফ উনাকে সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ হিসেবে খুশি প্রকাশ করার তওফীক দান করেন। (আমীন!)

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে