পশ্চিমবঙ্গে যাবে দেশদ্রোহী হিন্দুরা


সম্প্রতি বাংলাদেশের হিন্দুদের অবস্থা পরিদর্শনে এসেছে ভারতের উগ্র হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপের একটি প্রতিনিধি দল। বাংলাদেশের হিন্দুদের উপর অত্যচার-নির্যাতন চলছে এবং তাতে তাদের মনোবলে ‘চিড়’ ধরেছে বলে সে অভিযোগ করে। তাই নিরাপত্তা না দেয়া হলে তারা দেশ ছেড়ে পশ্চিমবঙ্গে চলে যেতে চায়।

অরুণ হালদার আরও বলে, ‘কিছুদিন আগে হিন্দু ধর্মাবলম্বী একজন প্রধান শিক্ষককে কান ধরে ওঠবস করানো হয়। এ ছাড়া বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন খবরাখবর আসে নির্যাতনের। সেগুলো শুনেও ভাবতাম যে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটছে। কিন্তু এখন হাজার হাজার হিন্দু এই অভিযোগটাই জানাচ্ছে। (http://goo.gl/u1hjRk, http://goo.gl/shWIX5)

মূলত, বাংলাদেশে হিন্দুদের থাকার কোন অধিকার নেই। কারণ এই হিন্দুরা সরকার এবং দেশদ্রোহী কর্মকান্ডে জড়িত। শুধু তাই নয় হিন্দুরা এখন বারবার ইসলাম ধর্মের অবমাননা করে সাম্প্রদায়িকতা করে চলেছে।(http://goo.gl/cm9Fs3)
তাই এ দেশে চক্রান্তকারী হিন্দুদের পশ্চিমবঙ্গেই চলে যাওয়া উচিত। সেই বিজেপির নেতার উচিত বাংলাদেশের হিন্দুরা যেহেতু তাকে অভিযোগ জানিয়ে বলেছে বাংলাদেশের হিন্দুরা পশ্চিমবঙ্গে যেতে চায় তাই তার উচিত হবে পশ্চিমবঙ্গে তাদের জন্য একটা ব্যবস্থা করে দেওয়া।

এবার আসি অন্য প্রসঙ্গে ! বিজেপি নেতা বাংলাদেশের এসেছে কথিত সংখ্যালঘুদের দেখতে। কিন্তু তাদের দেশেই সংখ্যালঘু মুসলমানরা কতটা নির্যাতিত অবহেলিত সেটা কি সে দেখে না ? ভারতে সামান্য গরুর গোশত খাওয়ার অজুহাতে মুসলমানদের ঘর থেকে বের করে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। (http://goo.gl/x43Y5V) গুজব রটিয়ে দাঙ্গা লাগিয়ে হাজার হাজার মুসলমান হত্যা করা হয়। বাংলাদেশে কি করা হয় ? বাংলাদেশে হিন্দুদের কিছুই করা হয় না। বরং বাংলাদেশে হিন্দুরা এমন জামাই আদরে আছে যে, মুসলমানদের চাকরি না দিয়ে সবখানেই হিন্দুদের প্রধান্য দেওয়া হয়।

পরিশেষে বলতে হয়, বাংলাদেশে এত সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার পরেও যদি বাংলাদেশে ভাল না লাগে তাহলে বিজেপির উচিত সরকার,দেশদ্রোহী ও রাজাকার হিন্দুদের পশ্চিমবঙ্গে পাঠানোর ব্যবস্থা করা।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে