প্রতিটি জিনিসের ভিন্ন ভিন্ন তাছীর থাকে; যে ব্যক্তি যে বিষয়ের সাথে সম্পৃক্ত হয় তার তাছীরই তার উপর পতিত হয়


জনৈক নাপিত নিয়মিত এক বাদশাহের চুল কাটতো। একদিন সে চুল কাটতে কাটতে বলল, জাঁহাপনা, আপনার একান্ত আদরের মেয়েটিকে দিন। আমার ছেলের সাথে বিয়ে দেব। কথা শুনে বাদশাহ তো কিংকর্তব্যবিমূঢ। নাপিতকে জবাব দেয়ার মত ভাষাই সে খুঁজে পেল না। একজন নাপিত কিভাবে তার ছেলের জন্য শাহজাদীকে চাইতে পারে? কিসে তাকে উদ্বুদ্ধ করল। ভাবতে ভাবতে বাদশাহ ঘটনাটি তার উজীরে আজমকে জানালো। উজির সব শুনে বলল, জাঁহাপনা, আপনি কোন স্থানে বসে আজ চুল কাটিয়েছিলেন? বাদশাহ বলল, অন্যান্য দিন যে স্থানে বসে কাটাই আজ সেখানে বসিনি। বরং (অন্য একটি জায়গার প্রতি ইশারা করে বলল) ঐ স্থানে আজ চুল কাটিয়েছি। উজীর বলল, জাঁহাপনা, আপনি যদি ঐ জায়গার মাটি সরাতে আদেশ করতেন, তাহলে আশা করা যায় এই রহস্য উন্মোচিত হত। উজীরের পরামর্শ মোতাবেক বাদশাহ ঐ স্থান খনন করতে বললেন। খনন করলে দেখা গেল, সেখানে অনেক সোনা-রূপা, মনি মুক্তা মজুদ। উজীর বলল, হুজুর, নাপিত এই স্থানে বসার কারণে, এই সম্পদের তাছীরেই, তার ছেলের সাথে শাহজাদীকে বিয়ে দেয়ার প্রস্তাব করতে সাহস পেয়েছে। আর বাস্তবে তাই হল। সেই স্থান থেকে সব সম্পদ উঠিয়ে নেয়ার পর বাদশাহ আবার সেই জায়গাতে বসেই সেই নাপিতকে দিয়ে চুল কাটাল। কিন্তু এবার নাপিত আর সেই সম্মন্ধে কোন কথাই বলল না। বরং আগের মত নিজের কাজ শেষ করে চলে গেল।

প্রতিটি জিনিসের ভিন্ন ভিন্ন তাছীর বা প্রভাব থাকে। যে ব্যক্তি যে বিষয়ের সাথে সম্পৃক্ত হয় তার তাছীরই তার উপর পতিত হয়। এই কারণে যাহিরী আলিমদের ছোহবত ইখতিয়ার করলে ইলম বৃদ্ধি হয়, কিন্তু মহান আল্লাহ পাক উনার মুহব্বত মা’রিফাত হাছিল হয় না। অভিজ্ঞদের ছোহবতে গেলে প্রত্যেক বিষয়ে চূড়ান্ত ফায়ছালা পাওয়া যায়। বৃদ্ধদের ছোহবতে গেলে চিন্তা শক্তি বৃদ্ধি পায় ও দুনিয়াবী অভিজ্ঞতা পয়দা হয়। রাজা-বাদশাহদের ছোহবতে গেলে অহংকার পয়দা হয়। সম্পদশালীদের ছোহবত ইখতিয়ার করলে ধন সম্পদের লোভ পয়দা হয়। স্ত্রীলোকদের ছোহবত ইখতিয়ার করলে কামভাব বৃদ্ধি পায়। আমীর-ওমরাদের ছোহবত ইখতিয়ার করলে দুনিয়ার প্রতি আসক্তি বৃদ্ধি পায়। বাচ্চাদের ছোহবত ইখতিয়ার করলে খেল-তামাশার প্রতি আসক্তি বৃদ্ধি পায়। আর হযরত আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনাদের ছোহবত মুবারকে গেলে মহান আল্লাহ পাক উনার মুহব্বত মা’রিফাত পয়দা হয় এবং দুনিয়ার মুহব্বত দূর হয়। মহান আল্লাহ্ পাক আমাদের সবাইকে হক্কানী রব্বানী অলীআল্লাহ্ উনাদের ছোহবত ইখতিয়ার করার তৌফিক দান করুন।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে