প্রতিটি পরিস্থিতিতে একমাত্র মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতিই তাওয়াক্কুল বা ভরসা করতে হবে


নেক খাছলত বা নেক স্বভাবের অর্ন্তভুক্ত বিষয় সমূহের মধ্যে একটি বিষয় হচ্ছে তাওয়াক্কুল। বান্দা-বান্দী, জিন-ইনসান পুরুষ-মহিলা সকলের জন্য ফরয মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতিই নির্ভরশীল হওয়া, ভরসা করা, তাওয়াক্কুল করা। পবিত্র কুরআন শরীফ উনার একাধিক পবিত্র আয়াত শরীফ উনাদের মধ্যে তাওয়াক্কুলের বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে। যেমন ইরশাদ মুবারক হয়েছে-
وَمَنْ يَّتَوَكَّلْ عَلَى اللهِ فَهُوَ حَسْبُهٗ
অর্থ: যে ব্যক্তি মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতি তাওয়াক্কুল করে তার জন্য মহান আল্লাহ পাক তিনিই যথেষ্ট। (পবিত্র সূরা তলাক্ব শরীফ : পবিত্র আয়াত শরীফ ৩)
অত্যন্ত পরিতাপের বিষয়, আজকে মানুষ মহান আল্লাহ পাক উনার দিকে রজু না হয়ে, মুহতাজ না হয়ে তারা গইরুল্লাহর দিকে, কাফির মুশরিকদের দিকে রুজু হয়, তাদের প্রতি ভরসা করে, তাদেরকে আশ্রয়দাতা, সম্পদ ও ক্ষমতা লাভের মদদদাতা মনে করে। নাউযুবিল্লাহ!
অথচ সমস্ত কিছুর মালিক হচ্ছেন, মহান আল্লাহ পাক তিনি। তিনিই যাকে ইচ্ছা রাজ্য বা ক্ষমা দান করেন, ইজ্জত-সম্মান দান করেন। যাকে ইচ্ছা বিনা হিসাবে রিযিক বা সম্পদ দান করেন।
কাজেই, মুসলমানের জন্য সমস্ত নিয়ামত লাভের জন্য মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতিই তাওয়াক্কুল বা ভরসা করতে হবে। এটা সম্মানিত ঈমান উনার অন্তর্ভুক্ত বিষয়। মহান আল্লাহ পাক উনার প্রতি তাওয়াক্কুল না করে কেউ যদি অন্য কারো দিকে ভরসা করে তার ঈমান ও আমল নষ্ট হয়ে যাবে। পরিনামে জাহান্নামীদের অন্তর্ভুক্ত হতে হবে।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে