প্রসংগ: কুরয়ান শরীফ তিলাওয়াত


কুরয়ান শরীফ তিলাওয়াতের ফযীলত আশা করি জানা আছে। অনেকে রমাদ্বান মাসে কুরয়ান শরীফ খতম দিয়ে থাকেন।এটাই স্বাভাবিক।পবিত্র কুরয়ান শরীফ যে সম্মানিত মাসে নাযিল হয়েছে সে মাসে বেশি বেশি তিলাওয়াত করা দোষের কিছু নয়। আর যেহেতু এ মাসে একটি নেক আমলের ফযীলত অন্যান্য মাসের ৭০ গুন,তাই এ মাসে বেশি বেশি কুরয়ান শরীফ তিলাওয়াত করা অবশ্যই অশেষ নেকী হাছিলের কারণ। কে না চায় তার আমলনামা নেকী দ্বারা পূর্ণ হোক!
আজকাল অনেককেই দেখা যায় বলে থাকে,অর্থসহ না পড়লে হবে না। এটা একটা ভুল কথা, অর্থ না জেনে পুরো কুরয়ান শরীফ পড়লেও খতম হবে। আর অবশ্যই প্রতিটি হরফে যে দশ নেকী তাতো পাবেই+রমজান মাস উপলক্ষে আরো বেশিই নেকী হাছিল করতে পারবে। সুবহানাল্লাহ।
আর যারা শুদ্ধ করে পড়তে পারেন না,অথচ চেষ্টা করেন+নিয়মিত অল্প অল্প করে হলেও কালামুল্লাহ শরীফ তিলাওয়াত করেন,তারা অতিরিক্ত হিসেবে আরো বেশি নেকী হাছিল করেন,চেষ্টা করার কারণে।
আর অবশ্যই মহান আল্লাহ পাক উনার কাছে সে আমলই পছন্দ,যা অল্প হলেও নিয়মিত আদায় করা হয়।
মহান আল্লাহ পাক যেন আমাদের সকলকেই নিয়মিত কুরয়ান শরীফ পড়ার এবং খতম করার তৌফিক দান করেন। আমীন।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে