প্রসঙ্গ রাষ্ট্রধর্ম ও ইসলাম: ::::::


১. উইকিপিডিয়াতে একমাত্র
বাংলাদেশই একই
সাথে ‘মুসলিম রাষ্ট্র’ ও ‘সেকুলার
দেশ’
-এর তালিকায় অবস্থান করছে।
উইকি
এডিটররা সংবিধান পড়ে এ
ব্যাপারে
কনফিউজড।
:
২. মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রধর্ম
ইসলাম। ফেডেরাল
কন্সটিটিউশনের
প্রথম ভাগের ৩ এর ১ অনুচ্ছেদে
বলা
হয়েছে: Islam is the religion of the
Federation; but other religions may
be practised in peace and harmony
in any part of the Federation.
ভাষাটা
প্রায় হুবহু বাংলাদেশের
সংবিধানের
মতোই। এর প্রথম ভাগের ২ক
অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে,
“প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম,
তবে
হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টানসহ অন্যান্য
ধর্ম
পালনে রাষ্ট্র সমমর্যাদা ও
সমঅধিকার
নিশ্চিত করিবেন।”
:
৩. জনৈক প্রফেসর
(মালয়েশিয়ান) একদিন ক্লাসে
বলেন,
“সরকার কেন ইসলামী কাজে
রাষ্ট্রের
অর্থ ব্যয় করে? – এমন প্রশ্ন
ছুঁড়েছিল
অমুসলিম কিছু গ্রুপ। সরকারপক্ষ
জবাব
দেয়, কারণ, সংবিধান অনুযায়ী
রাষ্ট্রের
ধর্ম ইসলাম।” তার মানে
সংবিধানে
রাষ্ট্রের কোনো ধর্ম নির্ধারিত
না
থাকলে, রাষ্ট্র সে ধর্মকে
বিশেষভাবে সাপোর্ট করার
নৈতিক ভিত্তি হারায়।
ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও অন্যান্য
ইসলামী কার্যক্রম (যতটুকুই আছে),
এসবে রাষ্ট্রীয় অর্থ ব্যয়
প্রশ্নবিদ্ধ
হওয়া তখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।
:
৪. মালয়েশিয়ায় মুসলিমদের
সংখ্যা প্রায় ৬১%,
আর বাংলাদেশে ৯০%।
মাত্র ৬১% মুসলিম নিয়ে ১৯৫৭ সাল
থেকে সংবিধানে
রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম নিয়ে দেশটি
প্রভূত
উন্নতি সাধন করে আসছে। অন্তত
এশিয়ার এই অংশে অন্য সব
উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য
মডেলের মতো। অথচ অর্থনীতি,
পরস্পরিক শ্রদ্ধা
কোনো কিছুতেই এই রাষ্ট্রধর্মে
ইসলাম ব্যাপারটা সমস্যা করছে
না। ৯০% মুসলিমের দেশ
বাংলাদেশে তাহলে সমস্যা
কোথায়?
:::::::::::::::
– সংগৃহীত
‪#‎রাষ্ট্রধর্ম_ইসলাম_বহাল_চাই‬

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে