প্রসঙ্গ: সাম্প্রতিক সময়ের মুসলিমবিদ্বেষ॥ মুসলমানদের উচিত ঐক্যবদ্ধ হয়ে শত্রুদের সম্পর্কে সচেতন হওয়া


প্রসঙ্গ

বর্তমানে সারা বিশ্বে মুসলমানদের আতঙ্কবাদী তথা টেরটিস্ট হিসেবে আখ্যায়িত করে যুলুম-নির্যাতন করা নিত্যান্ত স্বাভাবিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। দৈনন্দিন জীবনযাপন, সমাজ, পরিবেশ সবকিছুতেই মুসলমানদের আতঙ্কবাদী হিসেবে আখ্যায়িত করে মুসলমানদেরকে বিশ্বের দরজায় একটি নব্য শঙ্কা হিসেবে তৈরি করে তোলা হয়েছে। বর্তমানে বিশ্বের প্রায় সব দেশে বিশেষ করে কাফির-বেদ্বীনদের দেশগুলোতে মুসলমানরা এতই কষ্ট করে জীব-যাপন করছে যে, তা ভাষায় বলে বোঝানো সম্ভব নয়। তারই দুটি সামান্য উদাহরণ দেয়া যায় সাম্প্রতিক সময়ে ঘটে যাওয়া একটি ঘটনা দিয়ে।
উল্লেখ্য, ব্রাসেলসের মলেনবিক এলাকায় গতকাল এক উগ্রপন্থী খ্রিস্টান সংগঠনের ইসলামবিরোধী বিক্ষোভ চলাকালে এক আতঙ্কবাদী খ্রিস্টান রাস্তা পারাপার রত এক মুসলিম নারীকে অত্যন্ত নির্মমভাবে গাড়ি চাপা দিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করেছে। গাড়ি দিয়ে ধাক্কা দেয়ার পর যখন ওই মুসলিম নারী গাড়ির বোনেটের উপর পড়ে যায় তখন গাড়ির গতি বাড়িয়ে আরো কিছুদুর ওই মুসলিম নারীকে ঠেলে নিয়ে যাওয়া হয়। জানা গেছে, সেখানে নিষিদ্ধ ঘোষিত একটি খ্রিস্টান আতঙ্কবাদী সংগঠন প্রায় ৪০০ খ্রিস্টান নিয়ে ইসলামবিরোধী সেøাগান দিতে থাকে এবং এক পর্যায়ে এক উগ্র ইসলামবিদ্বেষী খ্রিস্টান এই বিদ্বেষমূলক ঘটনার অবতারণা করে। (সূত্র: http://goo.gl/j1hr4q)
আরো উল্লেখ্য যে, আমেরিকার টেক্সাসের এক মুসলিম ছাত্র (ওলালিদ আবু শাহবান)কে শুধুমাত্র মুসলমান হওয়ার কারণে তাকে অত্যন্ত অমানবিকভাবে উপহাস এবং মানসিক নির্যাতন করা হয়। সেখানে তাকে উপহাস করে বলা হয়- “আমি তোমার কাছে একটি বোমা দেখেছি” এবং এই কথাটি ওই স্কুলের সব ছাত্রদের বলার আদেশ দেয়া হয়। (সূত্র: http://goo.gl/ooGYRK)
বলাবাহুল্য, বর্তমানে এসব ঘটনা শুধু এই দুই মুসলিমদের বেলায়ই নয়, পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে প্রতিদিনই এরকম শত শত বিদ্বেষমূলক ঘটনা ঘটে চলেছে। যার মূল ভিত্তিই হচ্ছে, মজলুমকে মুসলিম হতে হবে। মুসলিম হলেই তাকে যুলুম এবং নিপীড়ন করা বৈধ হয়ে যাবে। নাউযুবিল্লাহ!
মূলত, বর্তমান মুসলিম উম্মাহ তথা সারা বিশ্বের মুসলমানদের বিশ্বব্যাপী এরকম যুলুম-নির্যাতন এর শিকার হওয়ার একমাত্র কারণ হচ্ছে, আজকে মুসলমানরা তাদের শত্রু সম্পর্কে বেখেয়াল। আর শুধু বেখেয়ালই নয়, উল্টো তারা তাদের শত্রুদের বন্ধু ভেবে বসে আছে। নাউযুবিল্লাহ! তাদের গোলামীতে ব্যস্ত। নাউযুবিল্লাহ!
তাই বর্তমান মুসলিমরা যদি সত্যিকারের উত্তোরণের পথে এগোতে চায় এবং তাদের হারানো স্বর্ণালী মিল্লাত আবার পুনরায় ফিরে পেতে চায়, তাহলে তাদের জন্য উচিত হবে, সর্বপ্রথম তাদের শত্রুদের সম্পর্কে জ্ঞানার্জন করা এবং পবিত্র কুরআন শরীফ এবং পবিত্র সুন্নাহ শরীফ মাড়ির দাঁত দিয়ে আঁকড়ে ধরে হাক্বীকী পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার পথে ফিরে আসা। আর এতে করেই মুসলিম উম্মাহ ফিরে পাবে তাদের হারানো ঐতিহ্যৃ, প্রতাপ-প্রতিপত্তি এবং সম্মান। মহান সাইয়্যিদুনা হযরত মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম তিনি যেন মুসলিম উম্মাহকে পরিপূর্ণ ঈমান এবং সেই সাথে ঈমানী কুওয়াত দান করেন। আমীন!

 

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে