সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে দু:খিত। ব্লগের উন্নয়নের কাজ চলছে। অতিশীঘ্রই আমরা নতুনভাবে ব্লগকে উপস্থাপন করবো। ইনশাআল্লাহ।

শরীয়তে প্রাণীর ছবি তোলা হারাম; তাহলে ছবির সংজ্ঞা কি?


শরীয়তে প্রাণির ছবি তোলা, আঁকা, রাখা, দেখা হারাম। আল্লাহ পাক উনার হাবীব হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ করেন, “নিশ্চয়ই ক্বিয়ামতের দিনে ওই ব্যক্তির সবচাইতে কঠিন শাস্তি হবে যে ব্যক্তি ছবি তোলে বা আঁকে।” (‘বুখারী শরীফ’)
অনেকে আক্বল-সমঝে ত্রুটি থাকার কারণে ক্যামেরায় তোলা ছবি যে শরীয়তে হারাম করা হয়েছে সেটা বুঝতে পারে না। ক্যামেরায় তোলা ছবি, টিভি, ভিসিআর, সিসিটিভি ক্যামেরা, মনিটর বা যে কোন ইলেক্ট্রনিক ও ডিজিটাল মাধ্যমে তৈরীকৃত প্রাণীর ছবিও শরীয়তে প্রাণীর ছবির উপর নিষিদ্ধতার সমপর্যায়ের হুকুম রাখে।
আরেকটু বিশদভাবে জানতে মাসিক আল-বাইয়্যিনাত শরীফ এর ৫ম সংখ্যা (১৯৯২ঈসায়ী-এপ্রিল) সংগ্রহ করুন, অথবা এখানে ক্লিক করুনঃ
http://allahwala13.blogspot.com/2011/07/blog-post_9075.html
Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

  1. আপনি কি জানেন হুজুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আবুল হিকামকে আবু জাহিল নাম দিয়েছিলেন। মূলত আজিজুল হক, হাটহাজারী মাদ্রাসার আহমদ শফী, মাসিক মদীনা সম্পাদক মহিউদ্দিন খান এবং চরমোনাইর পীরসহ সকল উলামায়ে ছূদের যোগ্যতা অনুযায়ী নাম দিয়ে মুজাদ্দিদে আ’যম মুদ্দা জিল্লুহুল আলী তিনি সেই সুন্নত আদায় করে থাকেন। কারণ ওইসব উলামায়ে ছূ হারামকে হালাল বলে, আর হালালকে হারাম বলে। ওরা তো হাদীছ শরীফে বরণিত দাজ্জালে কাযযাব, জুব্বুল হুযুনের বাসিন্দা। ওদের লাইগা দিল পুড়ায় ক্যান? ওদের বিরুদ্ধে বলা হলে কি বলা হচ্ছে একটু শুনে তারপর কথা বলবেন। আগে বিচার করুন, আমরা ঠিক বলছি কিনা?

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে