ফুটপাতের ব্যবসায়ীরা বছরে বিভিন্ন অবৈধ সংস্থাকে ৮৫০ কোটি টাকা চাঁদা দেন বলে জানিয়েছেন হকার্স নেতারা।


ফুটপাতের ব্যবসায়ীরা বছরে বিভিন্ন অবৈধ সংস্থাকে ৮৫০ কোটি টাকা চাঁদা দেন বলে জানিয়েছেন হকার্স নেতারা।

শনিবার রাজধানীর পুরানা পল্টনে ফটোজার্নালিস্ট মিলনায়তনে হকার ও ফুটপাত ব্যবসায়ীদের তৃতীয় জাতীয় সম্মেলনে তারা এ তথ্য জানান।

বক্তারা বলেন, দেশে ৫ লাখেরও বেশি হকার রয়েছেন। তারা গড়ে দৈনিক ৫০ টাকা হারে অবৈধ চাঁদা দিয়ে থাকেন। এই হিসেবে বিভিন্ন অবৈধ সংস্থাকে হকাররা ৮৫০ কোটি টাকা চাঁদা দেন।

হকার্স পুনবার্সনের নীতিমালা তৈরির দাবি জানিয়ে তারা বলেন, বিভিন্ন অবৈধ সংস্থাকে এভাবে চাঁদা দেওয়ার ফলে সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে। এই চাঁদা বৈধভাবে রাজস্ব আদায়ের মাধ্যমে সরকারি কোষাগারে জমা হতে পারে। আর এ জন্য দরকার জাতীয় নীতিমালা।

তারা বলেন, হকার্স সংগঠনগুলো দীর্ঘদিন ধরে হকার্স পুনর্বাসনের নীতিমালা প্রণয়নের দাবি জানালেও সরকার এ বিষয়ে মনোযোগী হয়নি।

এতে প্রতি বছর সরকার যেমন কোটি কোটি টাকা রাজস্ব হারাচ্ছে  তেমনি হাকররাও নানা হয়রানি, নির্যাতন ও  অবৈধ চাঁদাবাজির শিকার হচ্ছে।

বাংলাদেশের হকারদের জাতীয় নীতিমালা ও আইন প্রণয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী ও শ্রমমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তারা।

জাতীয় হকার্স ফেডারেশনের সভাপতি আরিফ চৌধুরীর সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন শ্রমিক নেতা আবুল হোসাইন, বিশেষ অতিথি ছিলেন হকার্স নেতা এমএ কাশেম এবং ওয়ার্কার্স পার্টি নেতা জাকির হোসেন রাজু।

সম্মেলনে আরিফ চৌধুরী সভাপতি এবং রফিকুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক করে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়।

এ কমিটি আগামী দুই বছর দায়িত্ব পালন করবে।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে