বঙ্গানুবাদ পড়েই সবটা বুঝা যায় না…


এই লোকগুলা কি বুঝবে একটা আয়াত শরীফে কতো মর্মার্থ লুকায়িত থাকে!!! তাদের তো সেই মাপের মাথা না!
মানুষ বাহ্যিক অর্থ দেখে বিভ্রান্ত হয়,নাস্তিক হয়,গোমরাহ হয় এবং চোখ,কান,অন্তর তালাবদ্ধ হয়ে যায়…..শুধুমাত্র আক্ষরিক অনুবাদের কারণে,অন্তর্নিহিত ভাব না বুঝার কারণে!
পূর্ববর্তী সমস্ত আসমানী কিতাব,১০০খানা সহীফা সহ সমস্ত কিতাবের মূল হচ্ছে এই পবিত্র কুরয়ান শরীফ।
আর পুরো কুরয়ান শরীফের সারাংশ হচ্ছে পবিত্র সূরা ফাতিহা শরীফ।
মানুষের পক্ষে কি সম্ভব এই পবিত্র সূরা ফাতিহা শরীফের ৭খানা আয়াত শরীফ দিয়ে পুরো কুরয়ান শরীফের প্রতিটি বিষয় ব্যাখ্যা করা???
সম্মানিত আওলাদে রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা ছাড়া কোনো সাধারণ মানুষের পক্ষে কখনোই সম্ভব নয়।
তারপরো দেখা যায় মানুষ অযথাই ভাব দেখায় বংগানুবাদ পড়েই সব বুঝে ফেলার!!!!!
আফসোস এই সমস্ত লোকদের জন্য! গোমরাহ যারা তারা কখনোই বুঝবে না অর্থ জানা আর অন্তর্নিহিত বিষয়বস্তু জেনে উপলব্ধি করা এক বিষয় না।
যদি একই হতো তবে আবু জাহিল,আবু লাহাব, উতবা,শায়বা এরা কাফির হতো না!
মহান আল্লাহ পাক যেন সকলকেই সহীহ সমঝ দান করেন এবং গোমরাহী থেকে,গোমরাহ থেকে হেফাজত করেন।আমীন

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে