বদস্বভাব জাহান্নামী হওয়ার কারণ!


আসলে ইলমে তাসাউফ চর্চা করা ব্যতীত নাযাত লাভ করা কঠিন!
মানুষের অন্তরে নেক স্বভাব ৪৪টি এবং বদ স্বভাব ৩৮ টি রয়েছে। কিন্তু দেখা যায় কামিল শায়েখ উনার কাছে বায়াত গ্রহণ করে যিকির ফিকির না করার কারণে বদস্বভাবগুলো দূর করা যায় না।তাই নেকস্বভাবের বহি:প্রকাশও তেমন ঘটে না।
অথচ আমল অনেক থাকলেও এই বদ স্বভাবই কিন্তু জাহান্নামী হওয়ার জন্য যথেষ্ট! নাঊযুবিল্লাহ!
আসলে আমরা সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনাকে যতটা সহজ মনে করি অতটা সহজ কখনোই নয় অন্তর পরিশুদ্ধ করা ব্যতীত। অর্থাৎ তাদের জন্যই সম্মানিত দ্বীন ইসলাম সহজ হয়ে যায় যারা ক্বলবের বিশুদ্ধতা অর্জন করতে পেরেছে।
বদস্বভাব যে জাহান্নামী হওয়ার কারণ সে বিষয়টা একখানা হাদীস শরীফ থেকে জানা যায়…
একদিন কতিপয় হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ, হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র দরবার শরীফে উপস্থিত হয়ে বললেন,ইয়া রাসূলাল্লাহ,ইয়া হাবীবাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! অমুক স্ত্রী লোকটি দিনে রোযা রাখে এবং সারা রাত ইবাদত বন্দেগী, যিকির- ফিকির করে কিন্তু তার মেজাজ বড়ই রুক্ষ।তার কর্কশ ভাষা ও ব্যবহারে প্রতিবেশীগণ বিরক্ত।
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম একথা শুনে ইরশাদ মুবারক করলেন,” সে স্ত্রী লোকটি জাহান্নামী।” তিনি আরো বললেন, “সিরকা দ্বারা মধু যেমন নষ্ট হয়ে যায়,মানুষের বদস্বভাবের দ্বারা তার যাবতীয় ইবাদত -বন্দেগী মূল্যহীন হয়ে পড়ে।” নাঊযুবিল্লাহ!
তাহলে আর কি রইলো! হিসাব নিকাশ করলে আমাদের তো কিছুই নাই!
মালিক পাক যেন মাফ করেন। তাই অন্তর পরিশুদ্ধ করে বদস্বভাব দূর করা ছাড়া আর কোনো উপায় নাই।
মহান আল্লাহ পাক যেন আমাদের সকলকে বদস্বভাব দূর করে, সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার উপর আবাদুল আবাদ ইস্তিক্বামত থাকার জন্য যা কিছু প্রয়োজন তার সমস্ত কিছুই নসীব করেন। আমীন।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে