বাংলাদেশের সরকারের জন্য ফরয- প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে, প্রতিটি সিলেবাসে দ্বীন ইসলাম মুতাবিক পাঠদানের যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা


বাংলাদেশ হচ্ছে ৯৮ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত একটি দেশ। এখানকার রাষ্ট্রদ্বীন সম্মানিত দ্বীন ইসলাম। আর সম্মানিত দ্বীন ইসলাম সম্পর্কে মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন- “নিশ্চয় সম্মানিত দ্বীন ইসলাম হচ্ছে পরিপূর্ণ জীবন ব্যবস্থা।”

আর মহান আল্লাহ পাক তিনি নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মাধ্যমে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম হাদিয়া করেছেন। সুতরাং প্রত্যেক মুসলমানের জন্য নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র জীবনী মুবারক সম্পর্কে জানা ও অনুসরণ করা ফরয।

নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র জীবনী মুবারক ব্যক্তিগত জীবনে, পারিবারিক জীবনে, সামাজিক ক্ষেত্রে, জ্ঞান-বিজ্ঞান, চিকিৎসা, শিক্ষা, বিচার ইত্যাদি সকল ক্ষেত্রে সূক্ষাতিসূক্ষ্মভাবে অনুসরণ করার কারণেই মুসলমান উনাদের সোনালী যুগ এসেছিল। সারাবিশ্বে মুসলমানরা একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার করেছিল। মুসলমান উনাদের ঘরে ঘরে কোটি কোটি টাকার সম্পদ ছিলো; যাকাত নেয়ার লোক খুঁজে পাওয়া যেত না। ন্যায়-ইনসাফে পরিপূর্ণ ছিলো সেই খুলাফায়ে রাশিদ্বীন আলাইহিমুস সালাম উনাদের যামানা।
কিন্তু অত্যন্ত আফসুসের বিষয়- মুসলমান উনারা নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র জীবনী মুবারক সম্পর্কে অজ্ঞ ও অনুসরণ না করার কারণে সর্বত্র লাঞ্ছিত হচ্ছে।

অন্যায়-অত্যাচার, চুরি-ডাকাতি, খুন, যুলুম-নির্যাতন, সুদ-ঘুষ, বেপর্দা-বেহায়াপনা, যানজট, অনিয়ম-অব্যাবস্থাপনা, বেইনসাফ আর দুর্নীতিতে ছয়লাব হয়ে গেছে সর্বত্র।
সুতরাং কঠিন এ পরিস্থিতি থেকে রক্ষা পেতে সিলেবাসের প্রতিটি বই থেকে কাফির-মুশরিক ও নাস্তিকদের বিষয় ও জীবনী বাদ দিয়ে নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার পবিত্র জীবনী মুবারক অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে