বাংলাদেশ খাদ্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পন্ন। অথচ সরকার প্রচার করে বেড়ায় যে, দেশে খাদ্য ঘাটতি আছে।


বিভিন্ন মৌসুমে খাদ্য উৎপাদন এত বেশি হয় যে, সঠিক বিপণনের অভাবে কৃষক কোন মূল্যই পায় না। এমনকি কৃষকের উৎপাদন খরচও উঠে না। এই সময়টাতে সরকার কৃষক কাছ থেকে খাদ্যগুলো ন্যায্য মূল্যে সংগ্রহ করে, হিমাগারে সংরক্ষণ করলে। একদিকে কৃষক যেমন ন্যায্যমূল্য পেতো অন্যদিকে ভোক্তারাও সল্পমূল্যে দ্রব্য সামগ্রী কিনতে পারতো।

কিন্তু গাদ্দার সরকার কৃষকের অধিকারের প্রতি কোন ভ্রূক্ষেপই করে না।

যামানার ইমাম ও মুজাদ্দিদ, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম বার বার সরকারকে খাদ্য সংরক্ষণের জন্য হিমাগার প্রতিষ্ঠা করতে আদেশ দেয়া সত্ত্বেও গাদ্দার সরকার সে বিষয়ে কোন গুরুত্ব না দিয়ে খাদ্য পাচারের কাজে নিয়োজিত রয়েছে। আর জনগণের টাকা অপচয় করে ফ্লাই ওভার নির্মান করে কোটি কোটি টাকা নিজেরা হাতিয়ে নেয়ার পাশাপাশি জনগণের মাথার উপর ঋণের বোঝা চাপিয়ে দিচ্ছে।

তাই কৃষকদের অধিকার রক্ষার্থে ও দেশের বিরুদ্ধে যে সমস্ত ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে তা রুখতে কৃষক ও কৃষিবিদ সহ সবার উচিত যামানার ইমাম ও মুজাদ্দিদ, সাইয়্যিদুনা হযরত ইমামুল উমাম আলাইহিস সালাম উনার কাছে বাইয়াত হয়ে দেশপ্রেমে উজ্জীবিত হওয়া ও দেশকে শত্রুদের কবল থেকে উদ্ধার করা।

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে