বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ করতে পারলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব। বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ করতে পারলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব। বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ করতে পারলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব। বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ করতে পারলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব। বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ করতে পারলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব। বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ করতে পারলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব। বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ করতে পারলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব। বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত আত্মঘাতী বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ করতে পারলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব।


গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। কারণ এটি প্রকৃত কারিগরি লসের চেয়ে অনেক বেশি। পাশাপাশি সরকার দেশের বিদ্যুৎ সঙ্কট মেটাতে যেসব পদক্ষেপ নেয়া দরকার তা করা হচ্ছে না। বরং সঙ্কটের দায়ভারের কারণে বারবার বিদ্যুতের দাম বাড়াতে হচ্ছে। আর এর মাশুল দিতে হচ্ছে সাধারণ গ্রাহককে। বিদ্যুৎ নিয়ে দেশের মানুষের দুর্ভোগ দিন দিন বাড়ছেই। কারণ বিদ্যুৎ না থাকাটাও যেমন সঙ্কট, তেমনি ঘন ঘন দাম বাড়ানোও সাধারণ গ্রাহকদের জন্য সঙ্কট। দেশের বিদ্যুৎ সঙ্কট মোকাবেলায় সরকার প্রথম থেকেই সঠিক সিদ্ধান্তের পরিবর্তে আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দেশে কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের আত্মঘাতী সিদ্ধান্তের কারণেই এখন পুরো জাতিকে খেসারত দিতে হচ্ছে। পাশাপাশি বছরে ২০ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হচ্ছে সরকারকে। কিন্তু তারপরও বিদ্যুৎ সঙ্কট কাটেনি। বরং দিন দিন তা আরো তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে। দেশে ২৪ লাখের উপর নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ দিতে সরকারকে বাড়তি ২ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়ানো প্রয়োজন। কিন্তু বাস্তবে তা বর্তমান সরকারের জন্য আদৌ সম্ভব নয়।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে