বিশ্বের যে সকল দেশে নারীদের শ্লীলতাহানি বেশি হয়!


কানাডা: ১ বছরেই এ দেশে সম্ভ্রমহরণের রিপোর্টেড কেসের সংখ্যা ২৫ লাখের বেশি। যা মোট রেপ কেসের মাত্র ৬ ভাগ। এদেশের প্রতি ৩ জন নারীর মধ্যে ১ জন নারী শ্লীলতাহানির শিকার হয় কিন্তু মাত্র ৬ শতাংশ রিপোর্ট করা হয়।
জার্মানি: এখানে শুধু কেবল সম্ভ্রমহরণই নয়, বরং সম্ভ্রমহরণের পর প্রায় আড়াই লক্ষ নারী ও শিশু মৃত্যুমুখে পতিত প্রতি বছর। প্রতিবছর জার্মানিতে নারীদের শ্লীলতাহানির রিপোর্ট করা হয় প্রায় ১ লক্ষের মতো।
যুক্তরাজ্য: দেশটির মিনিস্ট্রি অব জাস্টিস, অফিস ফর ন্যাশনাল স্ট্যাটিস্টিক্স এবং হোম অফিস একটি বুলেটিন প্রকাশ করে। রিপোর্টে বলা হয়- প্রতিবছর গড়ে ৮৫,০০০ নারী সম্ভ্রমহরণের শিকার হয়। ৪ লাখের ওপরে নারী শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হয়।
যুক্তরাষ্ট্র: ব্যুরো অব জাস্টিস স্ট্যাটিস্টিক্স-এর তথ্য মতে, যুক্তরাষ্ট্র সম্ভ্রমহরণের দিক দিয়েও প্রথম। ন্যাশনাল ভায়োলেন্স এগেইন্সট উইমেন সার্ভের তথ্য অনুযায়ী প্রতি ৬ জনের মধ্যে ১ জন আমেরিকান নারী একবার অন্তত সম্ভ্রমহরণের শিকার হয়েছে।
ভারত: প্রতি ২০ মিনিটে ভারতে একটি করে নতুন রেপ (শ্লীলতাহানি) কেস রিপোর্ট করা হয়। ন্যাশনাল ক্রাইম রিপোর্টস ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী প্রতি বছর কমপক্ষে ২৫ হাজার রেপ কেস রিপোর্ট করা হয়, কিন্তু বিশেষজ্ঞদের মতে অলিখিত কেস হিসাব করলে আরো অনেক বেশি।
সুইডেন: ইউরোপের সবচেয়ে বেশি সম্ভ্রহরণ রিপোর্ট করা হয় সুইডেনে। এখানে প্রতি ৪ জন নারীর ১ জন সম্ভ্রহরণের শিকার হয়। ইউরোপীয় ইউনিয়নের তথ্য অনুযায়ী রিপোর্ট করা হয়েছে এমন রেপ কেস পুরো ইউরোপের মধ্যে সুইডেনে সবচাইতে বেশি।
সাউথ আফ্রিকা: দেশটিকে পৃথিবীর ‘সম্ভ্রহরণের রাজধানী’ নামে আখ্যায়িত করা হয়। কমিউনিটি অব ইনফরমেশন, এমপাওয়ারমেন্ট অ্যান্ড ট্রান্সপারেন্সি ৪ হাজার নারীকে প্রশ্ন করে। প্রতি ৩ জনের মধ্যে ১ জন উত্তর দেয় যে- এর আগের বছর সে সম্ভ্রহরণ হয়েছে।
ফ্রান্স: ১৯৮০ সাল পর্যন্ত ফ্রান্সে সম্ভ্রহরণ কোনো অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হতো না। মাত্র ১৯৮০ সালে সম্ভ্রহরণকে ‘অপরাধ’ হিসেবে আইন পাস হয়। সরকারি হিসাবে প্রতিবছর দেশটিতে ৭৫ হাজার সম্ভ্রহরণ সংঘটিত হয়। মাত্র ১০ ভাগ নির্যাতিতা অভিযোগ দাখিল করেছে।
পাঠক! এ হিসাব বা জরিপগুলো কিন্তু কোনো মুসলমানদের সংস্থার নয়, এগুলো কিন্তু ওইসব কাফির, মুশরিকদের সংস্থার জরিপ। নিজেদের জরিপেই যদি এমন ভয়াবহ চিত্র ফুটে উঠে, তাহলে প্রকৃত অবস্থা আরো কত মারাত্মক, সেটা একবার ভেবে দেখুন। তাদের এহেন চিত্র দেখে- অন্ততপক্ষে কোনো ঈমানদার, মুসলমান তাদেরকে ‘সভ্য’ বলার আগে অবশ্যই শতবার ভেবে দেখবে।

Views All Time
3
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে