বিষাক্ত জিএম শস্য কেন নিষিদ্ধ হচ্ছে না, এ দেশের সরকার কি জিএম ফুড বিষয়ে অজ্ঞ?


বর্তমান বিশ্বের প্রায় সব দেশই বিষাক্ত বিকৃত জিন বা জিএম (জেনেটিক্যাল মডিফাইড) শস্য কঠোরভাবে নিষেধাজ্ঞা করছে। ইউরোপের ২৬টি দেশের মধ্যে ১৯টি দেশে জিএম শস্য চাষ নিষিদ্ধ। ফিলিপাইনে গোল্ডেন রাইস ব্যা- করার জন্য সাধারণ জনগণ আন্দোলন পর্যন্ত করেছে। ভারতে প্রবল বিতর্ক এবং জনরোষের মুখে দেশটির পরিবেশ মন্ত্রী জয়রাম রমেশ ২০১০ সালে জিএম শস্য (বিটি বেগুন) বাণিজ্যিকিকরণে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। ভারতের সবক’টি রাজ্য এইসব শস্য বাজারজাতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। চীন সরকার গোল্ডেন রাইস-এর বীজ তার দেশে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। এমনকি চোরাই পথেও যেন এ ধানের বীজ তার দেশে প্রবেশ করতে না পারে এ নিয়েও সতর্ক থাকছে চীন। অথচ বাংলাদেশের মতো সবজি উৎপাদনে বিশ্বে তৃতীয় অবস্থানে থাকা এবং খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনকারী দেশে ভিটামিন-এ’র জন্য এমন বিষাক্ত ধান উদপাদনে স্বীকৃত পাওয়া হওয়া সত্যিই আশ্চর্যজনক!
বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলোর শাসকরা এই জিএমফুড সম্পর্কে সম্যক ধারণা রাখে বলেই তারা কঠোরভাবে বিষয়টির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করছে এবং কোনোভাবেই যেন দেশে ঢুকতে না পারে সেদিকেও নজরদারি রাখছে। তাহলে বাংলাদেশ সরকার কেন জিএম ফুড-এর ক্ষতিকর দিকগুলো সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করছে না? জনগণকে কেন সতর্ক করছে না? দেশের মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হলে এর দায় কী সরকার এড়াতে পারবে?

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে