বোমাবাহী আল-কায়েদা জঙ্গি আসলে সিআইএর চর!


ওয়াশিংটন, মে ০৯ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/রয়টার্স)- যুক্তরাষ্ট্রগামী বিমান ধ্বংসের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আল-কায়েদা যাকে অন্তর্বাস বোমা হামলার জন্য পাঠিয়েছিল, সে মূলত সিআইএর চর হিসাবে ওই জঙ্গি সংগঠনে যোগ দেন।

আল কায়েদার মধ্যপ্রাচ্য শাখা আল-কায়েদা ইন দ্যা অ্যারাবিয়ান পেনিনসুলা (একিউএপি) ইয়েমেন শাখা থেকে প্রশিক্ষণের পর বোমা নিয়ে গত এপ্রিলে মার্কিন গোয়েন্দাদের হাতে তুলে দেন এই ‘ডাবল এজেন্ট’।

যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে লস অ্যাঞ্জেলস টাইমস বলেছে, ওই ব্যক্তিকে যুক্তরাষ্ট্র ও সৌদি আরবের গোয়েন্দারাই আল-কায়েদায় ঢুকিয়েছিল।

পেন্টাগন বলছে, আল-কায়েদা সদস্যদের প্রতিহত করার জন্য ইয়েমেনে তারা সামরিক প্রশিক্ষক পাঠাচ্ছে।

গত মাসে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানতে পারেন, একিউএপির ইয়েমেন শাখা যাত্রীর আন্তর্বাসের নিচে লুকিয়ে রাখা বিশেষ বোমা ব্যবহার করে বিমান ধ্বংসের পরিকল্পনা করছে।

এর আগে ২০০৯ সালেও একই ধরনের একটি হামলার চেষ্টায় ব্যর্থ হয় আল-কায়েদার এক আত্মঘাতী সদস্য। এবারের অন্তর্বাস বোমাটি ছিল আগেরটিরই উন্নত সংস্করণ, যা বিমানবন্দরের স্ক্যানারকেও ফাঁকি দিতে পারে।

নিউ ইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আল-কায়েদার কাছ থেকে বোমাটি নিয়ে হামলা চালানোর বদলে তা সিআই ও সৌদি আরব কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করেন সেই ‘চর’। বর্তমানে তিনি সৌদি আরবে ‘নিরাপদে’ আছেন।

সোমবার মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই এক বিবৃতিতে জানায়, তারা একটি ‘অর্ন্তবাস’ বোমা উদ্ধার করেছে, যা ব্যবহার করে আল-কায়েদার জঙ্গিরা একটি যাত্রীবাহী বিমান ধ্বংসের পরিকল্পনা করেছিল।

গত দশদিনের মধ্যে কোনো এক সময়ে বোমাটি উদ্ধার করা হয় বলে জানায় এফবিআই।

‘অর্ন্তবাস বোমা’ ব্যবহারের প্রথম ঘটনা ঘটে সৌদি আরবের সন্ত্রাস-বিরোধী জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা প্রিন্স মোহাম্মদ বিন নায়েফ হত্যার চেষ্টায়। এক হামলাকারী নিজের অর্ন্তবাসের ভেতরে একটি বোমা নিয়ে সৌদি কর্মকর্তার ওপর হামলার চেষ্টা করে। আত্মঘাতী ওই হামলায় হামলাকারী নিহত হলেও বেঁচে যান মোহাম্মদ বিন নায়েফ।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে