ভারতে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার নকশা পদদলিত॥ জাতীয় পতাকার চরম অবমাননা!


ভারতের যবন, ম্লেচ্ছ, অস্পৃশ্য হিন্দুদের ‘তারা টিভি’র একটি হারাম গানের অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার নকশায় নির্মিত একটি কার্পেটের উপর দাঁড়িয়ে হারাম গান করে ভারতীয় যবন, ম্লেচ্ছ, অস্পৃশ্য হিন্দু গোষ্ঠী বাংলাদেশের প্রতি চরম বিদ্বেষ প্রকাশ করেছে। ইচ্ছাকৃতভাবে কোন একটি দেশের জাতীয় পতাকাকে অবমাননা করার এ ঘটনাকে নিন্দা করেছেন অনেকেই। গত শনিবার সন্ধ্যায় হারাম গানের অনুষ্ঠানে বারবার জাতীয় পতাকার সবুজ রঙের ভিতরে গোল রক্তিম সূর্যের উপর দাঁড়িয়ে ঘোষক ও শিল্পীরা যখন গান গাইছে, তখন থেকেই এসএমএস এবং অনলাইনে ফেসবুক, অর্কুটে প্রতিবাদ শুরু হয়ে যায়। বিভিন্ন ব্লগে নিন্দার ঝড় এখনো চলছে ব্লগারদের।
আমাদের দাবি, ভারতীয় চ্যানেল ও পন্যসমূহ বাংলাদেশে নিষিদ্ধ করা হোক।

এদিকে, আমাদের দেশে এ ঘটনার প্রতিবাদে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সম্মুখে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

ভারতীয় বাংলা চ্যানেল ‘তারা টিভিতে’ বাংলাদেশের জাতীয় পতাকাকে অবমাননা করার প্রতিবাদে তরুণদের সমাজ, সাহিত্য ও সংস্কৃতি সংগঠন দন-্যস গত সোমবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সম্মুখে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। এতে বক্তারা বলেন, ৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের পতাকা। এই পতাকার সম্মান শুধু কোনো বিশেষ দিনের জন্য নয়। এই পতাকাকে সম্মান করতে হবে প্রতিদিন, সারা বছর ও সারা জীবন। কিন্তু’ আমরা যখন দেখতে পাই আমাদের বন্ধুরাষ্ট্র হিসেবে খ্যাত ভারতের একটি বাংলা চ্যানেল তারা টিভিতে গত ৬ অক্টোবর রাত সাড়ে ৮টায় একটি গানের অনুষ্ঠানে রক্তের বিনিময়ে কেনা জাতীয় পতাকাটি পদদলিত করে সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়, সেই দৃশ্য দেখে দেশবাসী নীরব থাকতে পারে না। বক্তারা বলেন, যে চ্যানেল এ দেশের জাতীয় পতাকাকে অবমাননা করেছে, সেই চ্যানেল আমাদের দেশে সমপ্রচার হওয়ার কোনো যুক্তি নেই। তারা ভারতের ‘তারা টিভি’কে এই হীন কাজের জন্য বাংলাদেশের মানুষের কাছে ক্ষমা চাইতে বলেছেন।

খবর নয়াদিগন্ত

পাঠক! স্বদেশ প্রেম ঈমানের অঙ্গ। আমাদের দেশের জাতীয় পতাকার উপর দায়িয়ে, পদদলিত করে তাদেরকে বয়কট করুন। তারা যে আমাদের চরম শত্রু এতে আর কোন সন্দেহের অবকাশ নেই। পবিত্র কুরআন শরীফ-এ আল্লাহ পাক বলেই দিয়েছেন যে, ‘তোমাদের প্রধান শত্রু হচ্ছে ইহুদী, অতঃপর মুশরিক।’ হিন্দু-মুসলিম কখনো এক হতে পারেনা, বন্ধুত্ব হতে পারেনা। তাই আর নয় হিন্দুদের সাথে বন্ধুত্ব। ভারত মৈত্রী একটি অসম সমীকরণ। তাই তাদের প্রচারিত মিডিয়া দেখা, শোনা ও পড়া বন্ধ করুন। তাদের উত্পাদিত ও সরবরাহকৃত পন্য ব্যবহার বন্ধ করুন। তাহলেই দেশের ৩০ লক্ষ শহীদে আত্মা শান্তি পাবে।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+