‘ভালোবাসা দিবস’ নামক অপসংস্কৃতি তো সংবিধানের সাথেও সাংঘর্ষিক


সংবিধানের ২৩নং অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, ‘রাষ্ট্র জনগণের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও উত্তরাধিকার রক্ষণের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’
সংবিধানের ১৫(গ) ধারায় বলা হয়েছে, “যুক্তিসঙ্গত বিশ্রাম, বিনোদন ও অবকাশের অধিকার।”
সংবিধানের ১৮(১) ধারায় বলা আছে, “মদ্য ও অন্যান্য মাদক পানীয় এবং স্বাস্থ্যহানিকর ভেষজের ব্যবহার নিষিদ্ধকরণের জন্য রাষ্ট্র কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।”
তথাকথিত ‘বিশ্ব ভালোবাসা দিবস’-এর চিত্র পর্যালোচনা করে দেখা যায়, এর মূলে রয়েছে, নারী, মদ, জুয়া, নাচ, গান, বাজনা, উন্মত্ততা, উচ্ছৃঙ্খলা, ঢোল-বাদ্য, বেপর্দা, বেহায়াপনা, মাতামাতি, হুজ্জোতি, বেলেল্লাপনা, উলঙ্গপনা, অশ্লীল, অশালীন, নীতিহীন বল্গাহারা বিনোদন ও পশ্চিমা অপসংস্কৃতির উগ্রতা আর অপচয়। এসব কিছু উপরোক্ত সংবিধানের অনুচ্ছেদ ও ধারা বিরুদ্ধ। কাজেই তথাকথিত ‘বিশ্ব ভালোবাসা দিবস’ বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আইন সংবিধান বিরোধী ও নিষিদ্ধ।
সংবিধান গেলো, সংবিধান গেলো বলে চিৎকারকারী সরকারী আমলারা কি উচিত নয়- দ্রুত ‘ভালোবাসা দিবস’ নামক এই সংবিধান বিরোধী, দেশবিরোধী এই অপসংস্কৃতি বন্ধ করে দেয়া। অবশ্যই উচিত।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে