“মজলুমকে স্বয়ং রব তায়ালা তিনি গায়েবী মদদ করে থাকেন”-এটাই মজলুমের সান্ত্বনার জন্য এবং যালিমের সতর্ক হবার জন্য যথেষ্ট


এক ব্যক্তি, হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার উপস্থিতিতে, হযরত আবু বকর ছিদ্দ্বীক আলাইহিস সালাম উনাকে কটু কথা বলছিল। হযরত ছিদ্দ্বীকে আকবর আলাইহিস সালাম তিনি কোনো বাদ প্রতিবাদ না করে নীরবে শুনছিলেন। কিছুক্ষণ পর তিনি ঐ ব্যক্তিকে একটি জবাব দিলেন। তৎক্ষণাৎ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সেখান থেকে উঠে চলে গেলেন। এটা দেখে হযরত ছিদ্দ্বীকে আকবর আলাইহিস সালাম তিনি পেরেশান হয়ে গেলেন। কালবিলম্ব না করে হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার কাছে ছুটে গিয়ে বললেন, “ইয়া রসূলুল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম! লোকটি যখন আমাকে কটু কথা বলছিল, আপনি চুপচাপ শুনছিলেন। কিন্তু যেই আমি জবাব দিলাম অমনি আপনি উঠে চলে এলেন!”

হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, “হে হযরত ছিদ্দ্বীকে আকবর আলাইহিস সালাম! যতক্ষণ আপনি চুপ ছিলেন এবং ধৈর্য ধারণ করছিলেন; ততক্ষণ আপনার সাথে মহান আল্লাহ পাক উনার একজন ফেরেশতা ছিলেন, যিনি আপনার পক্ষ হতে জবাব দিচ্ছিলেন। কিন্তু যখন আপনি নিজেই জবাব দিতে শুরু করলেন তখন ঐ ফেরেশতা চলে গেলেন এবং মাঝখানে এক শয়তান এসে গেল। সে আপনাদের উভয়ের মধ্যে গোলযোগ তীব্রতম করতে চাইছিল। হে হযরত ছিদ্দ্বীকে আকবর আলাইহিস সালাম! মনে রাখবেন, কোনো বান্দার উপর যদি যুলুম ও বাড়াবাড়ি হতে থাকে এবং সে কেবল মহান আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টি মুবারকের উদ্দেশ্যে তা ক্ষমা করতে থাকে এবং কোনো প্রতিশোধ নেয়া হতে বিরত থাকে, তবে মহান আল্লাহ পাক যুলুমকারীর বিরুদ্ধে তাকে সর্বাত্মক সাহায্য করেন।” সুবহানআল্লাহ!

মজলুমকে স্বয়ং রব তায়ালা তিনি গায়েবী মদদ করে থাকেন। এটাই মজলুমের সান্ত্বনার জন্য এবং যালিমের সতর্ক হবার জন্য যথেষ্ট।

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে