মসজিদে চেয়ারে বসে নামায পড়া বিষয়ে দলীল হিসেবে বাদশাহ শাহজাহানের ঘটনাই যথেষ্ট!


মসজিদে চেয়ারে বসে নামায পড়া বিষয়ে দলীল হিসেবে বাদশাহ শাহজাহানের ঘটনাই যথেষ্ট!

বাদশাহ শাহজাহান তাঁর শাসনামলে একবার খুজলী-পাচরা, চুলকানী রোগে আক্রান্ত হলে তৎকালীন হাকীম বা ডাক্তার দ্রুত আরোগ্য লাভের জন্য রেশমী কাপড় পরিধানের পরামর্শ দেয়। অতঃপর বাদশাহ তার দরবারের তিনশত মুফতীর ফতওয়ার ভিত্তিতে রেশমী কাপড় পরিধান করতে সম্মত হন। তবে শর্ত দেন, ‘যদি সেই যামানার সবচাইতে বড় বুযূর্গ এবং আল্লাহওয়ালা ফক্বীহ, যিনি সমকালীন হক্কানী-রব্বানী আলিম-উলামাগণ উনাদের শিরোমণি হযরত মুল্লা জিউন রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি ফতওয়া দেন যে, এ অবস্থায় রেশমী কাপড় পরিধান করা যাবে, তবে তিনি পরিধান করবেন।’ সে ভিত্তিতে হযরত মুল্লা জিউন রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার নিকট যখন ফতওয়া চাওয়া হলো, তখন তিনি বললেন- “যারা ফতওয়া দিয়েছে এবং যে ফতওয়া চেয়েছে তারা প্রত্যেকেই কাফির হয়ে গেছে। কারণ পুরুষের জন্য রেশমী কাপড় পরিধান করা হরাম। উক্ত হারামকে হালাল হিসেবে ফতওয়া প্রদান করার কারণে সংশ্লষ্ট সকলেই কাফির হয়ে গেছে। পরিশেষে বাদশাহ বাধ্য হয়ে সঠিক ফতওয়া মেনে রেশমী কাপড় পরিধান করা থেকে বিরত থাকেন। সুবহানাল্লাহ!

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে