মহাসম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করলে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সন্তুষ্টি মুবারক পাওয়া যায়


পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে,
اَحِبُّوْا اَهْلَ بَيْتِىْ لِحُبِّيْ .
অর্থ: তোমরা আমার হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে মুহব্বত করো আমার সম্মানিত মুহাব্বতে।” সুবহানাল্লাহ!
এখন দেখা যায় যে, সম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে তা’যীম-তাকরীম করে না, উনাদের শান-মান উনার বিরোধিতা করে থাকে। নাউযুবিল্লাহ! তারা যে উনাদের সম্পর্কে চু-চেরা করে থাকে এই চু- চেরা করা হচ্ছে কুফরীর অন্তর্ভূক্ত। এ কুফরীটা কিভাবে হয়? সম্মানিত ও মহাপবিত্র হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের মুহব্বত করলে যদি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনাকে মুহব্বত করা হয় তাহলে উনাদের বিদ্বেষ পোষণ করার দ্বারা হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি বিদ্বেষ পোষণ করা হয়। আর যে উনার প্রতি বিদ্বেষ পোষন করবে, সে কুফরী করবে এবং কাট্টা কাফির হবে। নাউযুবিল্লাহ!
পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে বর্ণিত রয়েছে, চার প্রকার ব্যক্তির জন্য নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ক্বিয়ামতের দিন সুপারিশ করবেন। ১. যারা আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সম্মান করবে। ২. যারা হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে শারীরীকভাবে খিদমত মুবারক করবে। ৩.যারা হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের আর্থিকভাবে খিদমত মুবারক করবে। ৪. যারা হযরত আহলু বাইত শরীফ আালাইহিমুস সালাম উনাদেরকে অন্তর ও যবান দ্বারা মুহব্বত করবে।
এ পবিত্র হাদীছ শরীফ উনাদের দ্বারা বুঝা গেল যে, হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সম্মান, মুহব্বত, খিদমত মুবারক করার দ্বারা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযুর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মুহব্বত অর্জন করবে এবং উনার সুপারিশ পাবে।
মহান আল্লাহ পাক তিনি যেন আমাদেরকে হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদেরকে যথাযথভাবে খিদমত মুবারক, মুহব্বত মুবারক করার তাওফীক্ব দান করেন। (আমীন)

Views All Time
1
Views Today
2
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে