মুত্তাক্বী যারা হতে চায় তাদের জন্য কিছু নছীহত মুবারক


আফদ্বালুল আউলিয়া, মুজাদ্দিদে মিল্লাত ওয়াদ্ দ্বীন, ইমামে রব্বানী, গউছে ছামদানী হযরত মুজাদ্দিদে আলফে ছানী রহমতুল্লাহি আলাইহি তিনি উনার এক মুরীদকে নছীহত করতঃ চিঠি লিখলেন। সেই চিঠি মুবারকে অনেক নছীহত মুবারক করে শেষে লিখেছেন, জেনে রাখ, অনেক আউলিয়ায়ে কিরাম রহমতুল্লাহি আলাইহিম উনারা বলেছেন যে, যতক্ষণ পর্যন্ত দশটি বস্তু নিজের প্রতি ফরয করে না নিবে ততক্ষণ পর্যন্ত কারো পরহিযগারী পূর্ণতা লাভ করবে না।
(১) গীবত হতে স্বীয় জিব্বাকে রক্ষা করা।
(২) অন্যের প্রতি অন্যায় অসৎ ধারনা করা হতে বিরত থাকা।
(৩) কারো প্রতি তিরস্কার না করা।
(৪) হারাম বস্তু হতে চোখকে হিফাযত করা।
(৫) সত্য কথা বলা।
(৬) নিজের প্রতি মহান আল্লাহ পাক উনার অনুগ্রহ সমূহের পরিচয় লাভ করা। যাতে আত্মগরিমা না আসতে পারে।
(৭) স্বীয় ধন-দৌলত সৎপথে ব্যয় করা এবং অসৎপথে ব্যয় না করা।
(৮) স্বীয় উচ্চতা ও অহংকার কামনা না করা।
(৯) নামাযের প্রতি লক্ষ্য রাখা।
(১০) আহলে সুন্নত ওয়াল জামায়াত উনার প্রতি ইস্তিকামত (অটল) থাকা। (আল বাইয়্যিনাত শরীফ ১৭৭)
আমরা যারা মুত্তাক্বী হতে চাই, আমাদের জন্য এই ১০টি বিষয় অর্জন করা অত্যাবশ্যক। এই বিষয়গুলি অর্জন করতে হলে সম্মানিত আউলিয়ায়ে কিরামগণ উনাদের ছোহবত মুবারক লাভ করতে হবে। এই সম্মানিত ছোহবত মুবারক লাভ করতে হবে অত্যন্ত মুহব্বতের সাথে, তা’যীম তাকরীমের সাথে, আদবের সাথে, সম্মানিত ওলীআল্লাহ উনাদের সম্মানিত আদেশ মুবারক ও সম্মানিত নিষেধ মুবারক যথাযথ পালন করার কোশেশ করতে হবে। তাহলে অবশ্যই আমরা এই ১০টি গুণ অর্জন করতে পারব।
মহান মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম ও সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম উনাদের সম্মানার্থে মহান আল্লাহ পাক তিনি যেন আমাদেরকে সেই তাওফীক দান করুন। আমিন!

শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে