মুলায়ম সিং এর ডিগবাজী এবং পুনরায় তথাকথিত “ভালো হিন্দু”দের মুখোশ উন্মোচন


গতকাল রাতে খবরে দেখলাম যে – উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ও সমাজবাদী পার্টির নেতা মুলায়ম সিং নরেন্দ্র মোদীর ভূয়সী প্রশংসা করেছে এবং তাকে পুনরায় প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দেখতে চায়। তার এই বক্তব্যে বিষয়টি ছাপিয়ে গোটা উত্তরপ্রদেশে ছড়িয়ে দিয়েছে বিজেপি।

 

এনডিটিভি লিঙ্ক – http://bit.ly/FraudMulayam

 

মুসলিমদের মাঝে “ভালো হিন্দু” বলে একটা থিওরী প্রচলিত আছে। মুসলিমরা বিশ্বাস করে যে যারা বিজেপিকে ভোট দেয় তারা হল “খারাপ হিন্দু” আর বাকীরা হল “ভালো হিন্দু”। এটা একটা অত্যন্ত হাস্যকর থিওরী।

 

বর্তমান রাজনৈতিক ও সামাজিক ঘতনাপ্রবাহে মুসলিমদের কাছে ভাবনার বিষয় হল, মুসলিমদের কাছে “ভালো হিন্দু” বলে পরিচিত এই মুলায়ম সিংকে বিজেপি বলত “মোল্লা মুলায়ম” এবং সমাজবাদী পার্টিকে বলে “নামাজবাদী পার্টি” ; তাহলে মুলায়ম সিং কিভাবে ডিগবাজী খেল?

 

শুধু মুলায়ম সিং নয়, তৃণমূল নেতা মুকুল রায় মুসলিমদের কাছে “ভালো হিন্দু” বলে পরিচিত ছিল, বামপন্থী নেতার লক্ষ্মণ শেঠ মুসলিমদের কাছে “ভালো হিন্দু” বলে পরিচিত ছিল। তারা কিভাবে বিজেপিতে গেলো ? এইগুলি তো উদাহরণ মাত্র, আরও ভুরি ভুরি উদাহরণ আছে।

 

মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস সরকার গঠন করেছে, কিন্তু দেখা যায় কংগ্রেস সরকার আর বিজেপি সরকার একই হিন্দুত্ববাদী এজেণ্ডা নিয়ে চলছে। কংগ্রেস সরকার গঠন করলেও একইভাবে মুসলিমরা গোরুর অজুহাতে সেখানে নির্যাতিত হয়ে চলেছে এবং কংগ্রেস সরকার সেই হিন্দুত্ববাদীদের ডিফেণ্ড করছে। তাহলে মুসলিমদের “ভালো হিন্দু” থিওরী কথায় গেল ?

 

বাংলার মাননীয়া বিজেপির সাথে সংসার করে, আরএসএস এর প্রশংসা করে এবং আরএসএস এর সমস্ত হিন্দুত্ববাদী এজেণ্ডা বাস্তবায়ন করেও এখনও মুসলিমদের কাছে “ভালো হিন্দু” সেজে আছেন। মুসলিমদের কি ভাবার সময় আসে নি ?

 

এই সমস্ত ঘটনায় মুসলিমদের জন্য কি শিক্ষণীয় আছে ? – মুসলিমদের বুঝতে হবে যে ভালো হিন্দু বলে কিছু নেই। কাফির মুশরিকরা কখনোই মুসলিমদের ভালো চায় না, ভালো হতে দেয় না, দেবেও না। তথাকথিত কোন “ধর্মনিরপেক্ষ ও অসাম্প্রদায়িক” দল মুসলিমদের ভালো চায় নি, বরং সবরকমভাবে মুসলিমদের নির্যাতন করেছে, বঞ্চিত করেছে, হেনস্থা করেছে, লাঞ্ছিত করেছে।

 

আপনি হয়ত ভাববেন যে অমুক অমুসলিম ব্যক্তি তো মোদীর বিরোধিতা করে, তাও সে খারাপ?

 

আসলে জাহিরীভাবে কিছু অমুসলিমকে দেখে তাদেরকে মুসলিমদের বন্ধু বলে মনে হলেও আসলে তারা মোটেও বন্ধু নয়। হয়ত তারা সামনে উগ্র হিন্দু সাম্প্রদায়িকতা ও মুসলিম বিদ্বেষের বিরোধ করছে কিন্তু তাদের মনে আছে অন্য, যা প্রকাশ পায় না।

 

এই প্রসঙ্গে মহান আল্লাহ পাক বলেনঃ

 

“তারা (কাফের মুশরিকরা) এটাই কামনা করে যে, তারা যেরূপ কুফরী করেছে তোমরাও সেইরূপ কুফরী কর, যাতে তোমরা তাদের সমান হয়ে যাও। (সূরা নিসা: আয়াত ৮৯)

 

কতগুলি উদাহরণ দিলে বুঝতে পারবেন।

 

মুখে তারা উগ্র হিন্দু সাম্প্রদায়িকতা ও মুসলিম বিদ্বেষের বিরোধ করছে কিন্তু তাদের মনে আছেঃ

 

১। মুসলিমদের মধ্যে সুদের প্রচলন হোক।

২। মুসলিমরা বেপর্দা হোক।

৩। মুসলিমরা ইসলাম ছেড়ে দিয়ে নাস্তিকতা বেছে নিক।

৪। মুসলিমরা ছবি, ভিডিও সহ আরও অনেকরকম হারামে নিমজ্জিত হোক।

৫। মুসলিমরা নিজেদের সংস্কৃতি ছেড়ে দিয়ে, বিধর্মীদের সংস্কৃতি গ্রহণ করুক।

৬। মুসলিমরা হারাম জিনিস খেতে-পরতে অভ্যস্ত হোক। ইত্যাদি ইত্যাদি ইত্যাদি ….

 

অর্থাৎ তারা মুখে উগ্র হিন্দু সাম্প্রদায়িকতা ও মুসলিম বিদ্বেষের বিরোধ করছে কিন্তু অন্য উপায়ে তারা মুসলিমদের হারামে নিমজ্জিত করে হাতে না মেরে, ভাতে মারার ষড়যন্ত্র করছে।

 

মুসলিমদের উচিত “ভালো হিন্দু” থিওরী বর্জন করে, নিজেদের অস্তিত্বসচেতন সচেতন হওয়া, নিজেদের দাবী দাওয়া নিয়ে সরব হওয়া, প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ করার চেষ্টা করা। মুসলিমদের অধিকার ও মর্যাদা কেউ পাইয়ে দেবে না, বরং নিজেদের আদায় করে নিতে হবে। এবং সেটা করতে গেলে মুসলিমদের নিজস্ব পৃথক দল গঠন করতে হবে, নিজেদের একজন আইকন সামনে রেখে টেবিলটা ঘুরিয়ে দিতে হবে। সেটা না করা গেলে হিন্দুদের দাসত্ব করা ছাড়া আর কোন উপায় নেই।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে