মুশরিকরা জাতে মাতাল তালে বেঠিক- বলেই ইসলাম ও মুসলিম বিদ্বেষে কমতি করেনা!


বিধর্মী বিজাতী ইহুদী মুশরিকরা কোন কালে কখনোই সভ্য মুসলমান উনাদের বন্ধু ছিলো না, বন্ধু হতে পারে না। এই বিষয়টি পবিত্র কুরআন শরীফ ও সুন্নাহ শরীফ উনাদের মাঝে বিশদভাবে অত্যন্ত পরিষ্কার ভাষায় বলে দেয়া হয়েছে। তারপরও দ্বীন ইসলাম হতে বিমুখ হয়ে পড়া মুসলমান নামধারীরা এই সকল বিধর্মী বিজাতী মুশরিকদেরকে ভালো মনে করে বন্ধুত্ব পেতে বার বার ধোকা প্রতারনার শিকার হয়েছে। ইতিহাসের পাতায় পাতায় এর নজির প্রচুর রয়েছে।

আজ এই প্রসঙ্গে নিকট ইতিহাসের বাংলা পুথিসাহিত্যের অন্যতম জনক, আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদের বক্তব্য শুনবো। তার জীবন চরিত এর মধ্যে উল্লেখ রয়েছে, তিনি বলেছেন,- “আলোঁক আধারে এই সংসার। আমার সাহিত্যিক জীবনের আধাঁর দিক আছে। মুসলমানের ঘরে জন্মিয়া সংস্কৃত পড়িতে গিয়াছিলাম বলিয়া কৈশোরে একদিন হিন্দু ছেলেদের কত টিটকারী আমাকে সহ্য করিতে হইয়াছিলো। আজ আবার মনে পড়িতেছে, মুসলমান হইয়া হিন্দুর পুথি দেখিতে গিয়াছিলাম বলিয়া কত হিন্দু তীব্র অবজ্ঞায় আমার প্রতি বঙ্কিম চাহনি নিক্ষেপ করিয়াছিলেন। খোদা’তায়ালা উনাকে ধন্যবাদ, তাহাদের সেই ঘৃনা ও শ্লেষদুষ্ট বক্র দৃষ্টিতে ব্যাহত না হইয়া আমার সাহিত্যানুরাগ বরং বাড়িয়াই চলিয়াছিলো। হিন্দু বাড়ি গিয়া এমনও দেখিয়াছি গোড়াঁ হিন্দু আমাকে পুথি ছুঁইতে দেয় নাই, সে পাতা মেলিয়া ধরিয়াছে আর আমি দুর থেকে দেখে দেখে নোট লিখিয়া লইয়াছি।” (সুত্র: আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ জীবন চরিত )
পাঠক! এমন বক্তব্য শুধু আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদের লেখায় নয় বরং বহু বহু কবি সাহিত্যিক মুসলিম বুদ্ধিজীবিদের জীবনী আলোচনায় ফুটে উঠেছে কিভাবে আর কতভাবে এই উপমহাদেশে মুশরিক যবনরা সম্মানিত মুসলমান উনাদেরকে ঘৃনা করতো, ধিক্কার দিতো, সর্বক্ষেত্রে বঞ্চিত করে রাখতো। অথচ, সেই মুসলমান উনারাই আজ হিন্দু মুশরিকদের তোয়াজ করে ভাই বন্ধু হিসেবে বরন করে নিচ্ছে। তাদেরকে রাষ্ট্রীয় সুযোগ সুবিধা সম্মানিত মুসলমান উনাদের চেয়ে বহু বহুগুন বেশী দেয়া হচ্ছে। যার ফলে সেই মুশরিকদের এই যুগের বশংবধরা জাতে মাতাল তালে বেঠিক হয়ে ৯৮ ভাগ মুসলিম অধ্যূষিত এই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালতের সামনে মুশরিকী দেবীর মুর্তি বসাচ্ছে। রাষ্ট্রদ্বীন ইসলাম উনার বিরুদ্ধে রিট করেেছ। প্রকাশ্যে পত্র পত্রিকা অনলাইনে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম ও সম্মানিত মুসলমান উনাদেরকে কুটক্তি করে নানাপ্রকার সন্ত্রাসী মতবাদ প্রচার করছে।

এমতাবস্থায় সম্মানিত মুসলমান উনারা অবিলম্বে একজোট হয়ে এইসব মুশরিকদের অবৈধ কার্যকলাপকে বাধা না দিলে অচিরেই সোনার বাংলাকে তারা তাদের কল্পিত রামরাজত্বের ভুমি বানানোর অপচেষ্টা করতে এতটুকু ভুল করবেনা। নাউযুবিল্লাহ মিন যালিক!

Views All Time
1
Views Today
3
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে