মুসলমানগণ বিধর্মীদের অনুষ্ঠান পালন করবে কেন? বিধর্মীরা কি মুসলমানগণের অনুষ্ঠান পালন করে?


ফসলী সন তথা বাংলা সনের প্রথম দিন পহেলা বৈশাখ মূলত বিজাতীয়-বিধর্মীদের উৎসব। পহেলা বৈশাখের আগের দিন চৈত্র সংক্রান্তি পূজা আর পহেলা বৈশাখ হলো ঘট পূজা, গনেশ পূজার দিন এছাড়া আরো অনেক পূজা রয়েছে। বৌদ্ধরা এইদিনে উল্কিপূজা করে। মজুসীরা (অগ্নিউপাসকরা) এই দিন নওরোজ উৎসব পালন করে। উপজাতিরা বৈশাখী অনুষ্ঠান পালন করে থাকে। নাউযুবিল্লাহ! তাহলে দেখা যাচ্ছে পহেলা বৈশাখে মুসলমানগণের কোনো অংশ নেই।
তাহলে মুসলমানগণ কি করে বিজাতীয়-বিধর্মীদের অনুষ্ঠান পালন করতে পারে? মুসলমানগণের ঈমানী কুওওয়ত এতোই কমে গেছে যে, মুসলমানগণ ইসলামবিদ্বেষী কোনো ঘটনায় প্রতিবাদ করা তো দুরের কথা বরং ইসলাম বিদ্বেষী বিধর্মীদের অনুষ্ঠানগুলো লালন-পালন করে যাচ্ছে। নাউযুবিল্লাহ! মুসলমানগণের নিকট একটি প্রশ্ন রাখতে চাই, আজ পর্যন্ত কোনো হিন্দু কিংবা বৌদ্ধ বা খৃষ্টানকে কি পবিত্র ঈদে মীলাদে হাবীবিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, পবিত্র শবে বরাত, পবিত্র শবে কদর উপলক্ষে মসজিদে আনতে পেরেছেন? উত্তর অবশ্যই না। তাহলে মুসলমানগণ কি করে তাদের অনুষ্ঠানগুলোতে যেতে পারে?

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে