মুসলমানদের ইবাদত-বন্দেগী নষ্ট করতে চাঁদ নিয়ে ষড়যন্ত্র


সউদী সরকার তবৎড় সড়ড়হ অনুযায়ী নতুন চন্দ্রমাস শুরু করে, যা শরীয়তসম্মত নয়। কারণ শরীয়তে চাঁদ চাক্ষুষ দেখা শর্ত। মূলত, Zero moon অনুযায়ী সউদী ওহাবী ইহুদী সরকার চন্দ্র তারিখ ঘোষণা করার করণে এই তারিখ অনুযায়ী কেউ যদি রোযা শুরু করে, তবে যে দিন রোযার দিন নয়, সেদিন ফরয রোযা রাখবে এবং উক্ত গণনা শেষে যে দিন রোযা রাখার দিন সেদিন ঈদ করবে; যা হারাম এবং আর সউদী ওহাবী ইহুদী সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী যদি পবিত্র হজ্জ করে তবে সঠিক তারিখ পবিত্র আরাফাতের ময়দানে অবস্থান করতে পারবে না। করার ফলে পবিত্র হজ্জ বাতিল হয়ে যাবে। নাঊযুবিল্লাহ!
ব্রিটিশ গুপ্তচর হেমপার তার স্বীকারোক্তিমূলক গ্রন্থ Confession of a British spy and British enmity against Islam -এ লিখেছে মুসলমানগণের পবিত্র হজ্জে বাধা সৃষ্টি করতে হবে যাতে মুসলমানরা পবিত্র হজ্জের মতো ফরয আমল আদায় করতে না পেরে এর আগ্রহ হারিয়ে ফেলে। কিন্তু সময়ের প্রেক্ষাপটে পবিত্র হজ্জে যাওয়ার ক্ষেত্রে পথে বাধা সৃষ্টি করার মতো সেই সুযোগ আজ আর নেই। তাই ইবলিসের চর ইহুদী-মুশরিক-খ্রিস্টানরা (Zero moon) ফিতনার মাধ্যমে মুসলমানগণের ফরয ইবাদত- পবিত্র হজ্জ নষ্ট করার নতুন ষড়যন্ত্রের জাল বিছায়। আর সউদী ওহাবী সরকার তাদের প্রভু ইহুদী-নাছারাদের খুশি করতে তাদের পাতা ফাঁদে পা দিয়ে (Zero moon) অনুযায়ী চন্দ্র তারিখ ঘোষণা করার নেপথ্যের উদ্দেশ্য হচ্ছে- পবিত্র হজ্জ, কুরবানী, রোযা, পবিত্র ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আদ্বহার নামাযসহ চাঁদের তারিখের সাথে সংশ্লিষ্ট সমস্ত ইবাদত-বন্দেগী বাতিল করা।

Views All Time
1
Views Today
1
শেয়ার করুন
TwitterFacebookGoogle+

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে আপনাকে অবশ্যই লগইন করতে হবে